স্বাস্থ্য ঝুকিতে অর্ধশতাধিক আবাসিক ছাত্র

Feature Image

 

কুষ্টিয়া সদর উপজেলার হাটশ হরিপুর ইউনিয়নের বাজারের পশ্চিম পাশে হাটশ হরিপুর হাফেজিয়া ও ক্বারীয়ানা এতিম খানা মাদ্রাসা প্রায় অর্ধশত ছাত্রদের ইসলামী জ্ঞানের পাশাপাশি আধুনিক শিক্ষায় শিক্ষিত করার লক্ষ্যে ১৯৯৭ সালে হাটশ হরিপুর হাফেজিয়া ও ক্বারীয়ানা এতিম খানা মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠিত হয়। দীর্ঘদিন ধরে মাদ্রাসার সামনে রাস্তার পাশে ময়লা, আবর্জনা ফেলায় রাস্তায় তীব্র দুর্গন্ধের সৃষ্টি হয়েছে।

হাটশ হরিপুর বাজারের সমস্ত ময়লা ফেলার কারণে জায়গাটা এখন ময়লার ভাগাড়ে পরিণত হয়েছে। এলাকার বাসিন্দা সুইট জানান, দীর্ঘদিন ধরে হাটশ হরিপুর হাফেজিয়া ও ক্বারীয়ানা এতিম খানা মাদ্রাসার সামনে ময়লা আবর্জনা ফেলায় রাস্তায় খুব দুর্গন্ধ হয়। এই রাস্তা দিয়ে অত্র এলাকার কয়েক শত পরিবারের বাসিন্দা যাতায়াতের জন্য ব্যবহার করে। এলাকার কয়েকজন নিয়মিত মসজিদে আগত মুসল্লীরা অভিযোগ করে বলেন, দীর্ঘদিন ধরে ভাঙ্গা রাস্তা দিয়ে চলাচল করতে সমস্যা হয়। তাছাড়া এই মাদ্রাসার সামনে রাস্তার পাশেই সবাই প্রস্বাব করে যার ফলে বাড়ি থেকে অজু করে আসলে মসজিদে যাওয়ার পথে অজু ভেঙ্গে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। হাটশ হরিপুর হাফেজিয়া ও ক্বারীয়ানা এতিম খানা মাদ্রাসার আবাসিক ছাত্র আব্দুর রহমান জানান, আমরা সবাই এই রাস্তা দিয়ে যাওয়ার সময় তীব্র গন্ধে নাক ধরে যাতায়াত করি।

খাওয়ার সময় তীব্র গন্ধে বমি আসে। আরেকজন ছাত্র সাইফুল জানান, মাদ্রাসার সামনে ময়লা আবর্জনা থাকায় মাদ্রাসার মাঠে খেলাধূলা করতে পারি না। অত্র প্রতিষ্ঠানের দায়িত্বে থাকা হাফেজ মোহাম্মদ ইউনুস আলী জানান, দীর্ঘদিন ধরে মাদ্রাসার সামনে রাস্তার পাশে বাজারের সমস্ত ময়লা আবর্জনা ফেলায় তীব্র গন্ধ সৃষ্টি হয় যার ফলে মাদ্রাসার অর্ধশত ছাত্রর মারাত্বক স্বাস্থ্য ঝুকি রয়েছে। তাই যত দ্রুত সম্ভব উক্ত সমস্যা সমাধান করে ছাত্রদের জন্য সুন্দর পড়াশোনার পরিবেশ করে দেওয়া হোক। এই ব্যাপারে হাটশ হরিপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এম সম্পা মাহমুদ জানান, দীর্ঘদিন ধরে হাটশ হরিপুর হাফেজিয়া ও ক্বারীয়ানা এতিম খানা মাদ্রাসার সামনে ময়লা আবর্জনায় ফেলা হয় এমন অভিযোগ পেয়েছি।

এটা খুব শীঘ্রই বন্ধ করে অন্যত্র ফেলানোর ব্যবস্থা করা হবে। এছাড়া ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ থেকে রাস্তা সংস্করণের উদ্দ্যোগ নেওয়া হবে। খুব শীঘ্রই উক্ত জনদুর্ভোগ নিরসন করে অত্র মাদ্রাসার ছাত্রদের পড়াশোনার সুন্দর পরিবেশ করে দেওয়া হবে। পাশাপাশি এলাকাবাসীর জনদুর্ভোগ নিরসন হবে।

আরো খবর »