লঙ্কানদের ৩২১ রানের টার্গেট ছুঁড়ে দিল বাংলাদেশ

Feature Image

স্বাধীনবাংলা২৪.কম

ক্রীড়া ডেস্ক:  টস জিতে প্রথমে ব্যাট করার অর্থ পরিষ্কার। শ্রীলঙ্কার সামনে বড় টার্গেট দাঁড় করে বোলিংয়ে নির্ভার থাকা। আর প্রতিপক্ষকে চাপে ফেলা। মাশরাফির গেম প্ল্যান পুরোপুরি সফল। তিন হাফ সেঞ্চুরিতে (তামিম ৮৪, সাকিব ৬৭, মুশফিক ৫২, শেষ দিকে সাব্বিরের ঝড়ো ব্যাটিং) তিনশ পার করানো ইনিংস। প্রথমে ব্যাট করতে নেমে বাংলাদেশ করে ফেলল ৩২০, সাত উইকেটে। হাথুরুর শ্রীলঙ্কার সামনে বিরাট চালেঞ্জ দাঁড় করলো টাইগাররা। সেই চ্যালেঞ্জ কি নিতে পারবে লঙ্কান ভাঙ্গাচোরা দলটি?

গত ম্যাচে অপরাজিত ৮৫ রান করে ম্যাচ জয়ের অন্যতম নায়ক তামিম ইকবাল আজ যেন ওখান থেকেই শুরু করেছিলেন। ভয়ডরহীন ব্যাটিং যাকে বলে। পার্টনার এনামুল হক শুরুতেই জীবন পেলেন। আড়াই বছর পর জাতীয় দলে ফেরা এ ওপেনার তেমন রান করতে পারেননি গত ম্যাচে। আজ টেনেটুনে করেছেন ৩৭ বলে ৩৫ রান। ওপেনিংয়ে স্থায়ী হতে হলে যে আরও ভালো কিছু করতে হবে তাকে।

বরাবরই তামিম নির্ভর দল বাংলাদেশ। শুরুটা তিনি ভালো করে দিতে পারলে তার উপর ভর করে ভালো স্কোর দাঁড়িয়ে যায়। বেশ অনেক দিন ধরেই টানা রানের মধ্যে আছেন তামিম। গত ম্যাচে সময়ের অভাবে সেঞ্চুরি করতে পারেননি। এ ম্যাচে কী সেঞ্চুরিটা করে ফেলবেন? এই হিসাব নিকাশের মধ্যেই হুট করে আউট হয়ে যান ১০২ বলে ৮৪ রান করে।

তখন ১৭০ রান ২৯.১ ওভারে। আটটি উইকেট হাতে। মানে দল অসাধারণ জায়গায়। সাকিব রান করে যাচ্ছেন অবলীলায়। বল হাতে স্পিন বিভাগের মূল দায়িত্বটা তাঁর কাঁধে। বোলিংয়ে এত বড় দায়িত্ব পালন করার পরও ব্যাটিংয়ে তিন নম্বরে নামা মুখের কথাও নয়। কিন্তু সাকিবের তিন নম্বর পজিশনটাই সবচেয়ে প্রিয়। কিন্তু এই পজিশনে স্থায়ী হওয়াটাও অনেক বড় চ্যালেঞ্জ তার জন্য। আজকে সহ ক্যারিয়ারে সাকুল্যে চারবার তিন নম্বরে ব্যাট করতে নেমেছেন সাকিব। কিন্তু আগের তিন ইনিংসে সর্বোচ্চ ছিল ৩৭, যা গত ম্যাচেই করেছিলেন তিনি।

ওই ম্যাচের পর জানিয়েছিলেন, তিন নম্বরে তিনি বড় ইনিংস খেলতে চান। আজ শুরু থেকে যেভাবে ব্যাট করছিলেন তাতে মনে হয়েছিল এ ম্যাচে বড় ইনিংস খেলে ফেলবেন। কিন্তু দারুণ আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে ব্যাট করার মধ্যেই সহজ একটা বলে কট অ্যান্ড বোল্ড হয়ে যান ৭৩ বলে ৬৭ রানের দারুণ ইনিংস খেলার পর।

অধিনায়কত্ব নিয়ে ঝামেলার পর সেই ক্লাসিক মুশফিককে দেখা গেল এ ম্যাচে। তামিম হাফ সেঞ্চুরি করেন ৭২ বলে, সাকিব ঠিক ৫০ বলে, আর মুশফিক হাফ সেঞ্চুরি হাঁকালেন ৪২ বলে। এদিকে ২৩ বলে ২৪ রান করে আউট হয়ে যান মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

রিযাদ ফিরে যাবার কিছু পরেই ৫২ বলে ৬২ রানের নান্দনিক ইনিংস খেলে বিদায় নেন মুশফিক। শেষ দিকে সাব্বিরের ব্যাটিং ঝলকে বাংলাদেশের স্কোর দাঁড়ায় ৩২০। ১২ বলে ২৪ করেন সাব্বির। শ্রীলঙ্কার হয়ে পেরেরা তিন উইকেট নেন।

বাংলাদেশ ইনিংস: ৩২০/৭ (৫০ ওভার)

(তামিম ইকবাল ৮৪, এনামুল হক বিজয় ৩৫, সাকিব আল হাসান ৬৭, মুশফিকুর রহিম ৬২, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ ২৪, সাব্বির রহমান ২৪*, মাশরাফি বিন মুর্তজা ৬, নাসির হোসেন ০, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন ৬*; সুরঙ্গা লাকমল ০/৬০, নুয়ান প্রদ্বীপ ২/৬৬, আকিলা ধনঞ্জয়া ১/৪০, থিসারা পেরেরা ৩/৬০, আসেলা গুনারত্নে ১/৩৮, ওয়ানিদু হাসারাঙ্গা ০/৫১)।

স্বাধীনবাংলা২৪.কম/এমআর

আরো খবর »