গ্রন্থমেলার পরিসর ও প্রকাশনা সংস্থা বেড়েছে

Feature Image

স্বাধীনবাংলা২৪.কম
ঢাকা: বাংলা একাডেমি আয়োজিত মহান একুশের গ্রন্থমেলার ইতিহাসে অতীতের যেকোনো মেলার চেয়ে এবারের মেলায় পরিসর বাড়ছে। অংশগ্রহণকারী স্টল ও প্রকাশনা সংস্থার সংখ্যাও বৃদ্ধি পাচ্ছে।

গত বছর মেলায় মোট পাঁচ লাখ ১৩ হাজার বর্গফুট এলাকায় মেলা বসেছিল। এবার তা দাঁড়াচ্ছে সাড়ে পাঁচ লাখ বর্গফুটে। স্টলের ইউনিট এবার বেড়েছে ৪১টি। গত বছর মেলায় ইউনিট ছিল ৬৫৯টি। এবার ৪৬০টি প্রতিষ্ঠানকে ৭০০ ইউনিট বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। প্রকাশনা সংস্থার সংখ্যা বেড়েছে মোট ৬০টি। এর মধ্যে নতুন প্রকাশনা ৩৪ এবং লিটল ম্যাগ ও অন্যান্য সংস্থার সংখ্যা বেড়েছে ২৬টি। প্যাভিলিয়ন বেড়েছে ১২টি। গতবার প্যাভিলিয়ন ছিল ১১। এবার হচ্ছে ২৩টি।

বাংলা একাডেমির সংশ্লিষ্ট বিভাগ থেকে মঙ্গলবার এ তথ্য জানানো হয়। মেলা আয়োজনের জন্য সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ও বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে স্টল ও প্যাভিলিয়ন নির্মাণের কাজ এগিয়ে চলছে।

এবারের মেলায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা আরো জোরদার করা হচ্ছে। নিরাপত্তাকর্মীর সংখ্যাও বাড়বে। পুলিশ, র‌্যাবসহ অন্যান্য ফোর্সের কর্মীদের জন্য অস্থায়ী ক্যাম্পের সংখ্যা বাড়ানো হচ্ছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি ও দোয়েল চত্বরের কাছে নিরাপত্তা বেস্টনি জোরদার হচ্ছে। সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে প্রবেশপথেও নিরাপত্তার অবস্থা বাড়বে বলে সংশ্লিষ্টরা জানান।

বাংলা একাডেমির পরিচালক ও একুশের গ্রন্থমেলা কমিটির সদস্য সচিব ড. জালাল আহমেদ বলেন, এবার ৮৩টি নতুন প্রকাশনা সংস্থা আবেদন করেছিল। তাদের মধ্যে ৬০টিকে স্টল দেওয়া হয়েছে। ফলে এবারের মেলায় অংশগ্রহণের জন্য পাবলিশার্সদের সংখ্যা বেড়েছে। বৃদ্ধি পাচ্ছে মেলার পরিসর। সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে গতবারের চেয়ে বেশকিছু বেশি জায়গায় স্টল হচ্ছে অংশগ্রহণকারী সংস্থা বৃদ্ধির কারণে।

তিনি জানান, মেলায় এবার বাড়তি আকর্ষণ থাকছে। এবারই প্রথমবারের মতো সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের মেলায় লেখক, সাহিত্যিক, কবি, বিভিন্ন অঙ্গনের সিনিয়র ব্যক্তিত্ব, বুদ্ধিজীবীসহ বিশিষ্ট নাগরিকদের প্রবেশের জন্য আলাদা একটি গেট স্থাপন করা হচ্ছে। এই গেইট দিয়ে শুধুমাত্র লেখকদেরই প্রবেশ করতে দেওয়া হবে।

আগামী পয়লা ফেব্রুয়ারি এবারের অমর একুশের গ্রন্থমেলা শুরু হবে। গ্রন্থমেলায় মাসব্যাপী থাকছে বিভিন্ন অনুষ্ঠানমালা। এর মধ্যে রয়েছে সেমিনার, বইয়ের মোড়ক উন্মোচন, প্রকাশনা উৎসব, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। ২২ ফেব্রুয়ারি থেকে তিন দিনব্যাপী অনুষ্ঠিত হবে আন্তর্জাতিক সাহিত্য সম্মেলন। এতে দশটি দেশের লেখকরা অংশগ্রহণ করবেন। সূত্র : বাসস

স্বাধীনবাংলা২৪.কম/এমআর

আরো খবর »