কুষ্টিয়ায় ছাত্রীনিবাস থেকে ছাত্রীর লাশ উদ্ধার

Feature Image

কুষ্টিয়া শহরের একটি ছাত্রীনিবাস থেকে আঞ্জুমান আরা সাথী (২০) নামের এক কলেজ ছাত্রীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার সকালে শহরের টালীপাড়ার সবোত আলীর ছাত্রীনিবাসের একটি রুমের দরজা ভেঙে ওই ছাত্রীর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

সাথী কুষ্টিয়া সরকারি কলেজের বিবিএ শেষ বর্ষের ছাত্রী। তিনি মিরপুর উপজেলার কুর্শা গ্রামের আনারুল ইসলামের মেয়ে।
সাথীর পারিবারের সদস্যরা জানায়, ২ বছর আগে একই উপজেলার নওদা আজিমপুর গ্রামের কায়েম আলী বিশ্বাসের ছেলে বাদশার সঙ্গে গোপনে প্রেম করে বিয়ে করে আঞ্জুমান আরা সাথী। পরে জানাজানি হলে দু’পক্ষই তা মেনে নেন। এর কিছুদিন পর বাদশা কাউকে না জানিয়ে বিদেশ চলে যায়। তবে সাথীর সাথে নিয়মিত যোগাযোগ রাখতে থাকে বাদশা। বাদশা প্রবাসে থাকা অবস্থায় বাংলাদেশে আরেক মেয়ের সাথে মোবাইলে সম্পর্ক গড়ে তোলে। এ নিয়ে গত বুধবার রাতে মোবাইল ফোনে বাদশার সাথে সাথীর বাকবিতণ্ডা হয়।

পরিবারের সদস্যরা আরো জানায়, রাতে সাথী রুমের দরজা বন্ধ দেখে তার সহপাঠীরা অনেক ডাকাডাকি করার পরও সে দরজা না খুললে তারা পুলিশকে খবর দেয়। পরে পুলিশ রুমের দরজা ভেঙে ফ্যানের সাথে গলাই ওড়না প্যাঁচানো ঝুলন্ত অবস্থায় সাথীর লাশ দেখতে পাই।

কুষ্টিয়া মডেল থানার ওসি (অপারেশন) ওবাইদুল ইসলাম জানান, প্রাথমিকভাবে ধারনা করা হয়েছে সাথী আত্মহত্যা করেছেন। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

আরো খবর »