পরীক্ষাগারে গজাল কানহীন ‌৫ শিশুর কান

Feature Image

শিশুটি তার একটি কান নিয়ে সমস্যায় ছিল। কেননা তার জন্মের পরে থেকেই একটি কান থাকলেও আর একটি কান ছিল না বললেই চলে। এই সমস্যা সমাধানের কোন পথ বের করতে পারছিলেন না শিশুটির মা-বাবা। শেষে চিকিৎসকদের পরামর্শে এক দুঃসাহসিক পদক্ষেপ নেন তারা।

ছেলের কান পেতে শেষে হাসপাতালের সেই চিকিৎসকের সাহায্যে এক গবেষকের সঙ্গে যোগাযোগ করেন তারা। তারপরের ঘটনায় অবাক হয়ে যাবেন সবাই। তিন মাসের মধ্যে শিশুর শরীরে জায়গা করে নিল আস্ত একটি কান। আর এই অসাধ্য সাধন করেছেন চীনের একদল গবেষক।

শিশুর যে কানটি অপুষ্ট ছিল, সেখান থেকে কোষ সংগ্রহ করেন তাঁরা। পরীক্ষাগারে শিশুর বয়স অনুযায়ী নকল কানের একটি ছাঁচ তৈরি করেন তারা। তাতে শিশুর অপুষ্ট কানের কোষ রেখে তার সঙ্গে রাসায়নিক বিক্রিয়া ঘটান। যাকে বলে মাইক্রোশিয়া। সেই মাইক্রোশিয়ার সাহায্যেই জীবিত কোষ থেকে ধীরে ধীরে গঠত হয় একটি পূর্ণাঙ্গ কান। তারপর সেটি অপারেশন করে শিশুর অপুষ্ট কানের অংশে প্রতিস্থাপিত করেন চিকিৎসকরা।

শুধু একজন নয়, এরকম ভাবে প্রায় ৫টি শিশুর কান পরীক্ষাগারে গজিয়েছেন গবেষকরা। তারপরে সেই কানগুলি অস্ত্রোপচার করে বসানো হয়। এখন একেবারে স্বাভাবিক ভাবেই বয়সের সঙ্গে সঙ্গে বৃদ্ধি পাবে তাদের কান।

আরো খবর »