আপনি কি জানেন, স্তনবৃন্তের রং গায়ের চেয়ে গাঢ় কেন হয়?

Feature Image

নিউজ ডেস্ক : মানুষের জানার আগ্রহের শেষ নেই। কি কারনে কোনটা হলো বা কোন হলো। সত্যি বলতে কী, পৃথিবীতে ভাবার মতো অনেক বিষয়ই আছে! তার মধ্যে খামোখা স্তনবৃন্ত আর যৌনাঙ্গ কেন গায়ের রঙের চেয়েও কিছুটা বেশি গাঢ় হয়, তা নিয়ে মাথা ঘামাবার কারণ আছে কি?

আছে কি নেই- সে বিতর্ক পরে! আগে সত্যি করে বলুন তো, এটা কি আপনার কখনই মনে হয়নি যে দেহের নির্দিষ্ট কিছু জায়গা একটু বেশি গাঢ় রঙের কেন? আর, এটা যখন স্বাভাবিক ব্যাপার, তখন এর মধ্যে কি প্রাকৃতিক কোনও উদ্দেশ্য লুকিয়ে রয়েছে?
প্রাকৃতিক উদ্দেশ্য যেমন নেই, তেমন নেই রহস্যও! ব্যাপারটা স্রেফ মেলানিন আর হরমোনের খেলা!

ত্বকবিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, মেলানিন হল এমন এক ধরনের অ্যামিনো অ্যাসিড যার উপর নির্ভর করে গায়ের রং গাঢ় বা পাতলা হয়। যেমন, যাঁদের গায়ের রং চাপা, তাঁদের ত্বকে মেলানিনের পরিমাণ বেশি। উল্টো দিকে, ত্বকে মেলানিন কম থাকলে মানুষ ফর্সা হয়।

এই একই কারণে স্তনবৃন্ত আর যৌনাঙ্গ গায়ের রঙের চেয়ে একটু বেশিই গাঢ় রঙের হয়ে থাক্।ে সঙ্গে বাড়তি কারণ হিসেবে যুক্ত হয় ইস্ট্রোজেন আর টেস্টোস্টেরন নামের দুই হরমোন।

ত্বকবিশেষজ্ঞদের বক্তব্য, মানুষ যখন বয়ঃসন্ধিতে পা দেয়, তখন তার শরীরে ইস্ট্রোজেন আর টেস্টোস্টেরন- এই দুই হরমোন নিঃসরণ হয়। এই দুই হরমোনের প্রভাবে জন্ম নেয় মেলানিন। মেলানিনের উপস্থিতিতেই স্তনবৃন্ত আর যৌনাঙ্গ গাঢ় রং ধারণ করে।
একই কারণে যে সব বাচ্চাদের চুলের রং, চোখের মণি হালকা রঙের হয়, বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে তা আর ততটাও হালকা থাকে না!

আরো খবর »