উন্মোচন হলো না ছয় বছরেও সাগর রুনি হত্যার রহস্য।

Feature Image

আব্দুস সালাম অন্তর: সাংবাদিক সাগর সরওয়ার ও মেহেরুন রুনি আজ তাদের মৃত্যুর ছয় বছর অতিক্রান্ত হলেও বিচার হয়নি ঘাতকদের। সাংবাদিক দম্পতির এমন খুনের বিস্মিত হয়েছিল সারা বিশ্ব। সাংবাদিক সাগর-রুনি’র একমাত্র আদরের সন্তান মেঘ এখন বড় হচ্ছে। এমন বিচারহীনতার কোন প্রভাব পড়বে না তার উপর? যার ছোটবেলাটা বাবা-মায়ের সঙ্গে হেসে খেলে পার করার কথা ছিল কিন্তু সেই ছেলেবেলাতেই হারাতে হয়েছে তার প্রিয় বাবা মাকে।

সময়টা ছিলো ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১২ সালের। রাতে রাজধানীর পশ্চিম রাজাবাজারের ৫৮/এ/২, রশিদ লজ অ্যাপার্টমেন্টের পঞ্চম তলার ফ্ল্যাট মাছরাঙা টেলিভিশনের বার্তা সম্পাদক সাগর সরওয়ার এবং এটিএন বাংলার সিনিয়র রিপোর্টার মেহেরুন রুনির ক্ষতবিক্ষত লাশ উদ্ধার করা হয়৷ হত্যার ছয় বছর পার হয়ে গেলেও বিচার হয়নি এখনো।

আর কত সাংবাদিক নির্মমভাবে হত্যা হলে, আর কত সাংবাদিক দম্পতি এমন নির্মমতার শিকার হলে এদেশে সাংবাদিক হত্যার বিচার হবে। দেশে যদি আইনের শাসন তন্ত্রের উপরে চলে তাহলে সাংবাদিক সাগর সরওয়ারে ও মেহরুন রুনি দম্পতির ছয় বছর অতিক্রাত হলেও হত্যার বিচার হলো না মনে প্রশ্ন রয়েযায়।

তাদের আত্মীয়-স্বজন ভাই সহ সকলেরই হয়তো কানতে কানতে চোখের পানি শুকিয়ে গেছে। বড় আদরের ছেলে “মেঘ” শিশু বয়সে হারিয়ে ফেলেছে বাবা মাকে এতিম করে দিয়েছে তাকে ঘাতকেরা। আজ আমরা ক জন মনে রেখেছি তাদের। এত সহজেই ভুলে যাচ্ছি এই সাংবাদিক দম্পতির হত্যা। বিশ্ব সহ সারা বাংলাদেশের সাংবাদিকরা এখন আদালতের দিকে মুখ চেয়ে বসে আছি। কবে হবে এই সাংবাদিক দম্পতি হত্যার বিচার?

ছয় বছরে এ মামলার হাত বদল হয়েছে কয়েকবার। এরইমধ্যে হয়ত মামলার আলামত গুলো নষ্ট হতে বসেছে। সংশয়ে দিন পার করছে তার পুরো পরিবার। সিনিয়র সাংবাদিকদের অভিমত এমন চাঞ্চল্যকর সাংবাদিক দম্পতির হত্যা মামলার যদি বিচার না হয়, তাহলে এ দেশে সংবাদিকাদের নিরাপত্তা কে দিবে? তাই বিচার বিভাগের কাছে দ্রুত বিচার কাজ সম্পন্ন এবং সাংবাদিকদের বিশেষ নিরাপত্তার আহ্বান জানিয়েছেন তারা।

আরো খবর »