মুক্তিযোদ্ধাকে দেশ ত্যাগ করে ভারত চলে যাওয়া হুমকি

Feature Image

মানিকগঞ্জ থেকে জালাল উদ্দিন ভিকুঃ  সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের এক মুক্তিযোদ্ধাকে দেশ ত্যাগ করে ভারত চলে যাওয়া হুমকি দেওয়ার অভিযোগে মানিকগঞ্জ ঘিওর উপজেলা পয়লা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হারুন অর রশিদের বিরুদ্ধে থানায় সাধারণ ডায়েরী (জিডি) হয়েছে।

ছোট পয়লা গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা দিলীপ কুমার দত্ত জানান, কর্মস্থলের কারনে তিনি ৪০ বছর ধরে ঢাকায় থাকেন। প্রতিবেশী আব্দুর রাজ্জাক তার মৃত ভাই নিখিলের স্ত্রী গৌরী রানী দত্ত ও ভাতিজি শীলা রানি দত্তকে দিয়ে তার জমি আত্মসাত করার জন্য পরিকল্পনা করে। জমিজমা নিয়ে আদালতে মামলা রয়েছে।

মামলা চলাকালিন সময় তার অবর্তমানে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান হারুন অর রশিদ বাড়ির সীমানা নির্ধারন করেন। গত ৯ ফেব্রæয়ারী আব্দুর রাজ্জাক তার বাড়ির গাছ কাটতে আসে। এসময় বাঁধা দিলে আব্দুর রাজ্জাক স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান হারুন অর রশিদকে ডেকে নিয়ে আসেন। চেয়ারম্যান হারুন অর রশিদ ঘটনাস্থলে এসে তাকে অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করেন। বিষয়টি সমাধান না করে চেয়ারম্যান হারুন অর রশিদ তাকে ভারত চলে যাওয়ার কথা বলে। স্বেচ্ছায় ভারতে না গেলে তাকে তাড়িয়ে দেওয়া হবে বলে চেয়ারম্যান হারুন অর রশিদ হুমকি দেয়। যে কোনো সময় তার উপর আক্রমন হতে পারে বা জীবননাশে সংকায় তিনি সোমবার বিকেলে ঘিওর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেন।

স্থানীয় পয়লা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হারুন অর রশিদের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, দিলীপ কুমার দত্তকে ভারত চলে যাওয়ার কোনো হুমকি দেওয়া হয়নি। দিলীপ কুমার দত্ত তার ভাইয়ের জমিজমা আত্মসাত করার জন্য বিভিন্ন মামলা মোকদ্দমা করেছে।

ঘিওর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি ) রবিউল ইসলাম জানান, দিলীপ কুমার দত্তে সাথে তার মৃত ভাইয়ের স্ত্রী গৌরী রানি দত্তের জমি নিয়ে মামলা মোকদ্দমা রয়েছে। স্থানীয় লোকজন ও চেয়ারম্যান একটি বন্টননামা করে দিয়েছেন। বিষয়টি দিলীপ কুমার দত্ত মেনে নেয়নি। চেয়ারম্যান তাকে ভারত চলে যাওয়ার হুমকি দিয়েছে মর্মে তিনি একটি জিডি করেছেন। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।###

আরো খবর »