সন্দেহজনক লেনদেনের অভিযোগে বিএনপি নেতাদের বিরুদ্ধে দুদকের তদন্ত

Feature Image

বিএনপির শীর্ষ পর্যায়ের ৮ নেতার বিরুদ্ধে ১২৫ কোটি টাকার ‘সন্দেহজনক’ লেনদেনের একটি অভিযোগ তদন্তে নেমেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। এই লেনদেন ৩০ দিনের মধ্যে বিভিন্ন ব্যাংক হিসাবে হয়েছে বলে দুদক নিশ্চিত হয়েছে।

এই নেতারা হলেন— বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মির্জা আব্বাস, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, নজরুল ইসলাম খান, সহসভাপতি আবদুল আউয়াল মিন্টু, এম মোর্শেদ খান, যুগ্ম মহাসচিব হাবিব-উন-নবী খান সোহেল ও নির্বাহী সদস্য তাবিথ আউয়াল।

গতকাল দুদকের একজন উপপরিচালক স্বাক্ষরিত একটি চিঠিতে বিএনপি নেতাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ অনুসন্ধানের সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়। চিঠিতে উল্লেখ করা হয় যে, ৩০ দিনে তাদের অ্যাকাউন্ট থেকে মানিলন্ডারিং ও সন্দেহজনক লেনদেনের মাধ?্যমে ১২৫ কোটি টাকা লেনদেনসহ জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগ অনুসন্ধানের জন্য দুদকের উপপরিচালক মো. সামছুল আলমের নেতৃত্বে দুই সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। অন্য সদস্য হলেন দুদকের সহকারী পরিচালক মো. সালাহ উদ্দিন। বিএনপি নেতাদের সবার বিরুদ্ধে জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগও অনুসন্ধান করবে দুদকের এই অনুসন্ধান দল বলে জানা গেছে।

আরো খবর »