ফাঁসি দেওয়ার আগে জল্লাদ অপরাধীর কানে কি বলে থাকে জানেন? জানুন…

Feature Image

আসামী এমন কিছু তারা অপরাধ করে বসে যার ফলে অপরাধিকে ফাঁসি দেওয়া হয়ে থাকে । আর এখন মানুষের অপরাধের মাত্রা দিন দিন অনেক বেড়ে চলেছে ।

আর প্রত্যেক অপরাধের জন্যে তাঁর সাজা ঠিক করে দেওয়া হয়ে থাকে । আমরা সকলেই ফিল্মে অনেক বার দেখেছি এই সব ফাঁসিতে কি কি করা হয়ে থাকে । জর্জ অপরাধীকে তাঁর অপরাধ অনুযায়ী সাজা দিয়ে থাকেন ।

আমরা সকলেই দেখেছি জর্জ সাব ফাঁসি দেওয়ার পর তাঁর পেনের নিব ভেঙে দিয়ে থাকেন । আর কোন সাধারন সাজার জন্যে কাউকে ফাঁসি দেওয়া হয়ে থাকে না ।

কাউকে সাজা ঘোষনার পর তাঁর ফাঁসি দেওয়ার দিন ঠিক তখনি বলে দেওয়া হয়ে থাকে ।আর এই ফাঁসি দেওয়া অনেক গুলি পদ্ধতির মধ্যে হয়ে থাকে ।

আর আমরা সকলেই জানি ফাঁসির দিন অপরাধিকে ভোর ভোর ঘুম থেকে তোলা হয়ে থাকে । তাকে খাবার খাওয়ান হয়ে থাকে, তাকে স্নান করান হয়ে থাকে ।

আর সঠিক সময়ে তাকে ফাঁসি দেওয়া হয়ে থাকে । আর আমরা সকলেই জানি এই ফাঁসি দেওয়ার কাজ জল্লাদ করে থাকে ।

আর আপনাদের জেনে অবাক লাগবে আমাদের দেশে ফাঁসি দেওয়া জল্লাদের সংখ্যা অনেক কম, মোট দুটি জল্লাদা আছে ।

আর যারা কোর্টের আদর্শের পালন করে অপরাধিকে ফাঁসি দিয়ে থাকে । আর আপনারা দেখেছেন যখন কাউকে ফাঁসি দেওয়া হয়ে থাকে ,জল্লাদ কয়েকটি প্রক্রিয়া পালন করে থাকে ।

আসলে জল্লাদ প্রথমে অপরাধির কানের কাছে যায় আর তাঁর কানের কাছে কি বলে থাকে আর তাঁর পর তাকে ফাঁসি দেওয়া হয়ে থাকে । আর আপনি কি জানেন জল্লাদ অপরাধির কানে কি বলে থাকে ?

আসলে জল্লাদ তাঁর কানে বলে থাকে মুসলিমকে স্যালাম আর হিন্দুকে রাম রাম। আমি আমার কর্তব্যে বাঁধা তাই আমি আমার কাজ করছি আর তারপর ভালো কাজের প্রেরনার সাথে তাকে ফাঁসি দিয়ে থাকে ।

আর প্রথমে এই কাজটি করতে সকল জল্লাদকে একটি খারাপ বোধ হয়ে থাকে কিন্তু এটি পরে অভ্যাসে পরিনত হয়ে থাকে । আর এটি একটি খুব কঠিন কাজ । আর জল্লাদ সব সময় তাঁর ডিউটির জন্যে তৈরি থাকে ।

আরো খবর »