বেতন বন্ধের নোটিশ দিলেন উপজেলা শিক্ষা অফিসার!

Feature Image

শনিবার কুৃষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার জাতীয়করণকৃত শিমুলিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় আকস্মিক পরিদর্শনে যান উপজেলা শিক্ষা অফিসার মো. সিরাজুল ইসলাম। তিনি বেলা ২ টা ৫৫ মিনিটের সময় বিদ্যালয়ের আঙিনায় প্রবেশ করার পর তিনজন খালি গায়ে এবং দুইজন শার্ট পরিহিত শিক্ষার্থীকে বিদ্যালয়ের আঙিনায় খেলা করতে দেখেন। কয়েক মিনিট পর প্রধান শিক্ষক ও তিনজন সহকারী শিক্ষক অফিস হতে বের হয়ে আসেন। শ্রেণিকক্ষে না থেকে কেন অফিসে রয়েছেন জানতে চাইলে কোন শিক্ষার্থী শ্রেণিকক্ষে নাই বলে শিক্ষকবৃন্দ শিক্ষা অফিসারকে জানান।

কেন শিক্ষার্থীরা নাই প্রশ্ন করলে শিক্ষকবৃন্দ নানা অজুহাত দেখান। এরপর উপজেলা শিক্ষা অফিসার ৪ জন শিক্ষককে শিক্ষার্থীদের বিদ্যালয়ে খুঁজে আনার জন্য শিক্ষার্থীদের বাড়িতে পাঠিয়ে দেন। ৩০ মিনিট পর তাঁরা বিদ্যালয়ের ৭২ জন ছাত্রছাত্রীর মধ্যে ৪৯ জনকে নিয়ে বিদ্যালয়ে হাজির হন।

বেলা ২: ৫৫ ঘটিকায় শ্রেণিকক্ষে কোন শিক্ষার্থী না থাকা এবং শ্রেণি কার্যক্রম বন্ধ থাকায় চার জন শিক্ষককে বেতন বন্ধ কেন করা হবে না মর্মে কারন দর্শানো নোটিশ উপজেলা শিক্ষা অফিসার। উল্লেখ্য তৃতীয় ধাপে জাতীয়করণকৃত শিমুলিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চারজন শিক্ষকের চলতি বছরের এপ্রিল মাস হতে নিয়মিত বেতন ভাতা প্রদান শুরু হয়েছে এবং শনিবার সকালে ৭২ জন শিক্ষার্থীর জন্য নতুন ভবন নির্মান কল্পে বিদ্যালয়ের নিজস্ব জমিতে সয়েল টেস্ট সম্পন্ন হয়েছে।

আরো খবর »