কুড়িগ্রাম হারাচ্ছে সফল ডিসি সুলতানা পারভীন কে : ক্ষুব্ধ জেলাবাসী

Feature Image

কুড়িগ্রাম জেলা প্রশাসক সুলতানা পারভীনের বদলীর আদেশে কুড়িগ্রাম জেলার সাধারণ জনগণের মাঝে ব্যপক ক্ষোভের সষ্টি হয়েছে। গত ২৭শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং, বৃহস্পতিবারে সংবাদ মাধ্যমে সারাদেশে ১০ জন ডিসির বদলীর তালিকায় কুড়িগ্রাম জেলার ডিসি সুলতানা পারভীন এর নাম দেখে জেলাবাসী বিস্মিত হয়ে পড়েন।

মাত্র ৬ মাস পূর্বে তিনি কুড়িগ্রাম জেলার ডিসি হিসাবে দায়িত্বভার গ্রহণ করেন। এত স্বল্প সময়ের ব্যবধানে কুড়িগ্রাম জেলার সার্বিক উন্নয়নে, জেলার সাধারণ জনগণকে সেবাদানের মনোভাব নিয়ে নিরলস ও আন্তরিক ভাবে কাজ করা ডিসি সুলতানা পারভীনের এই আকস্মিক বদলীর আদেশে ক্ষুব্ধ জেলাবাসী। বিশেষ করে জেলার তরুণ ও যুবক সম্প্রদায়ের মধ্যে ব্যাপক ক্ষোভ ও হতাশার সৃস্টি হয়েছে। সমগ্র জেলায় ডিসি সুলতানা পারভীন এর বদলীর প্রসঙ্গটি ”টক অব দ্য ডিস্ট্রিক্ট” এ পরিণত হয়েছে। কুড়িগ্রাম জেলার বিভিন্ন উপজেলা এবং গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় ক্ষুব্ধ জনতা প্রতিবাদের প্রস্তুতি নিচ্ছে বলেও বিস্বস্ত সূত্রে জানা গেছে।

সরকারী চাকুরীতে বদলী একটি নিয়মিত ঘটনা। কিন্তু ডিসি সুলতানা পারভিন এর ক্ষেত্রে এই আদেশটি কুড়িগ্রাম জেলার অব্যাহত উন্নয়নের স্বার্থেই পুনর্বিবেচনার জন্য সরাসরি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন জেলাবাসী। কি কারণে মাত্র ৬ মাসের দায়িত্ব পালন করতে যেয়ে ডিসি সুলতানা পারভীন সমগ্র জেলায় দল মত নির্বিশেষে একজন চৌকস, মেধাবী,আন্তরিক ও পরিশ্রমী জেলা প্রশাসক হিসাবে খ্যাতি অর্জন করলেন, এ সম্পর্কে কুড়িগ্রাম জেলা শহরের একজন সিনিয়র সাংবাদিক বলেন, ডিসি সুলতানা পারভীন নিরীহ, শান্তিপ্রিয় মানুষের জনপদ কুড়িগ্রামের ব্যাপক উন্নয়নের আকাঙ্খা নিয়েই কাজ শুরু করেছিলেন যা কুড়িগ্রাম দিব্যচোখে অবলোকন করেছে। তিনি বিগত বন্যায় আক্রান্ত বানভাসী ও নদীভাঙ্গন কবলিত মানুষের পাশে একজন মহিলা হয়েও অমানুষিক পরিশ্রম করেছেন, ছুটে গেছেন দুর্গত এলাকায় তাৎক্ষণিক ভাবে।

জেলার সকল সরকারী, বেসরকারী প্রতিষ্ঠান সহ সামাজিক, সাংস্কৃতিক এবং এনজিও প্রতিষ্ঠানের মধ্যে নিয়মিত ভাবে সমন্বনয়কের ভূমিকা পালন করতেন। সংবাদ মাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তাঁর সকল কর্মকান্ড এই অভাবী জনপদের তরুণ যুবক যুবতীদের মধ্যে ব্যাপক সাড়া জাগায়। ডিসি হিসাবে যোগদানের কিছুদিন পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে ভাইরাল হওয়া ঢাকার ফুটপাতে শুয়ে থাকা সেই অসুস্থ মা, শিশু ও পরিবারের দায়িত্ব নেন সুলতানা পারভীন। ঢাকা থেকে তাদের কুড়িগ্রামে নিয়ে এসে পুনর্বাসনের ব্যবস্থাও করেন। আজীবন মনে রাখবে শিশু স্বাধীন কুড়িগ্রামের ডিসি সুলতানা পারভীনকে।

শুধু কুড়িগ্রামেই নয়, ঢাকাস্থ কুড়িগ্রাম জেলাবাসীদের মধ্যেও ডিসি সুলতানা পারভীন এর এই আকস্মিক বদলীতে হতবাক হয়েছেন সকলে। এ বিষয়ে ঢাকাস্থ কুড়িগ্রাম সমিতির সাধারণ সম্পাদক সাইদুল আবেদীন ডলার বলেন, এদেশে ভাল কাজের মূল্যায়ন না হয়ে অবমূল্যায়ন হয় বেশি। ডিসি সুলতানা পারভীন কুড়িগ্রামের সার্বিক উন্নয়নে যে কাজ শুরু করেছেন তা ধারাবাহিকভাবে সম্পন্ন করার জন্যে আরো কিছুদিন তাঁর কুড়িগ্রামে থাকা আবশ্যক। বিষয়টি সংশ্লিষ্ঠ কতৃপক্ষ বিবেচনা করলে কুড়িগ্রাম জেলা উপকৃত হত।

আরো খবর »