ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন সাংবাদিকদের অধিকার ক্ষুণ্ন করবে না

Feature Image

ঢাকা,  : তথ্যমন্ত্রী ও জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু বলেছেন, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন গণতন্ত্র ও গণমাধ্যম রক্ষার জন্য। এ আইন সাংবাদিকদের অধিকার ক্ষুন্ন করবেনা।
তিনি আজ বিকেলে রাজধানীর গণগ্রন্থাগারে শওকত ওসমান স্মৃতি মিলনায়তনে দৈনিক বাংলার ডাক পত্রিকার দশম বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতা করছিলেন।
ইনু বলেন, “দেশে গণতন্ত্র, শান্তি ও সুশাসন বজায় রাখা আর জঙ্গিবাদ ও সাইবার অপরাধ দমনের জন্যই আধুনিক ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন করা হয়েছে। এ আইন অপরাধদমনের জন্য, গণমাধ্যমকে সংকুচিত করার জন্য নয়।”

এসময় বিএনপি প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, “খালেদা-বিএনপি চক্র বারবার গণতন্ত্র আর সুশাসনের বিরুদ্ধে জঙ্গি-নাশকতার পথ বেছে নিয়েছে, এখনো তারা সেই পথেই মাথাচাড়া দিয়ে উঠতে চায়। আর একারণেই রাজনীতি থেকে এদের দূরেই রাখতে হবে। যারা গণতন্ত্র ও সংবিধান মানেনা, মানুষের ওপর আগুনযুদ্ধ চাপায়, রাজনীতিতে তাদের ঠাঁই নেই।”
তিনি বলেন, ২০১৮ সালের নির্বাচনের পর দেশকে যদি শান্তি, উন্নয়ন, সুশাসনের ধারায় রাখতে হয়, তবে জঙ্গি-রাজাকারের সরকার আসতে দেয়া যাবেনা।

বাংলার ডাকের প্রকাশক ও সম্পাদক মো. মনোয়ার হোসেন সিদ্দিকীর সভাপতিত্বে আওয়ামী লীগ নেতা এমএ ফারুক প্রিন্স ও জহির উদ্দিন মাহমুদ লিপটন, জাতীয় যুবজোট সভাপতি রোকনুজ্জামান রোকন, ব্যবসায়ী হাসানুজ্জামান মাসুদ এ সময় বক্তব্য রাখেন।
এদিকে বাংলাদেশ ও উত্তর কোরিয়ার মধ্যে সংবাদ আদান প্রদান ও টেলিভিশন অনুষ্ঠান বিনিময়ের জন্য একটি সমঝোতা স্মারক সাক্ষরের বিষয়ে নীতিগতভাবে ঐকমত্য হয়েছে বলে তথ্য মন্ত্রণালয় সূত্র জানিয়েছে।

বুধবার সচিবালয়ে উত্তর কোরিয়ার নবনিযুক্ত রাষ্ট্রদূত পাক সং ইয়োপ তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু’র সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎকালে এবিষয়ে একমত হন তারা।
বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থা এবং বাংলাদেশ টেলিভিশনের সাথে উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা ও টেলিভিশনের চুক্তির বিষয়ে তথ্যমন্ত্রীর দেয়া প্রস্তাবকে স্বাগত জানিয়ে রাষ্ট্রদূত বলেন, “উত্তর কোরিয়া সবসময় বাংলাদেশকে তার প্রকৃত বন্ধু মনে করে এবং দু’দেশের ঘনিষ্ঠতর যোগাযোগ দু’দেশের উন্নয়নকে এগিয়ে নিতে একান্ত সহায়ক হবে।”

আরো খবর »