ট্যুরিস্ট ভিসাতেই ভারতে স্বল্প মেয়াদে চিকিৎসা সেবা

Feature Image

ঢাকা : জটিল, দীর্ঘ মেয়াদি চিকিৎসা বা হাসপাতালে ভর্তি না হলে টুরিস্ট ভিসা দিয়েই ভারতে স্বল্প মেয়াদে চিকিৎসা করানো যাবে। এ জন্য মেডিকেল ভিসার প্রয়োজন হবে না। ঢাকায় ভারতীয় হাইকমিশনার হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা মঙ্গলবার হাইকমিশনে সাংবাদিকদের এ কথা জানান।

তিনি আরো জানান, ভারত সরকার বাংলাদেশিদের জন্য ওই দেশটির আকর্ষণীয় লাদাখ, সিকিম, অরুণাচলে যাওয়ার অনুমতি দেবে। নিরাপত্তার কারণে এতদিন সেখানে যাওয়ার অনুমতি ছিল না। এখন বাংলাদেশে ভারতীয় হাইকমিশন থেকে এই অনুমতি মিলবে।

ভারতীয় হাইকমিশনার আরো জানান, গত অক্টোবর মাসে বাংলাদেশে দিনে ১০ হাজার ভারতীয় ভিসা দেওয়া হয়েছে। এ বছরে বাংলাদেশে ভারতীয় ভিসা ইস্যুর সংখ্যা ১৪ লাখ ৩০ হাজারে দাঁড়াবে। এখন কোনো অ্যাপয়েন্টমেন্ট ছাড়াই সরাসরি ভারতীয় ভিসা আবেদন জমা দেওয়া যায়।

ভারতীয় হাইকমিশনার জানান, ভারতীয় ভিসা আবেদনকেন্দ্র পরিচালনকারী স্টেট ব্যাংক ইন্ডিয়া ঢাকায় বারিধারায় যমুনা ফিউচার পার্কে ভারতীয় ভিসা আবেদন কেন্দ্রটির বিশ্বের সর্ববৃহৎ ভিসা আবেদন কেন্দ্র হিসেবে গিনেজ বিশ্ব রেকর্ডের স্বীকৃতির জন্য কাজ করছে। সাড়ে ১৮ হাজার বর্গফুটের ওই ভিসা আবেদন কেন্দ্রটি সারা দেশে অন্য ভিসা আবেদন কেন্দ্রগুলোর জন্য মডেল হয়ে ওঠেছে।

তিনি বলেন, শীগগীরই আরো ছয়টি নতুন ভিসা আবেদন কেন্দ্র খোলা হচ্ছে। ভারত সম্পর্কে ইতিবাচক ধারণার শুরু ভারতের ভিসা আবেদন কেন্দ্র থেকেই যাতে শুরু হয় সে জন্য উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, ভারতীয় ভিসার সংখ্যার চেয়ে ভারত সফরকারী বাংলাদেশির সংখ্যা অনেক বেশি। কারণ এখন দীর্ঘ মেয়াদি মাল্টিপল ভিসা দিচ্ছে ভারত। মুক্তিযোদ্ধা, ব্যবসায়ী ও প্রবীণরা পাঁচ বছর মেয়াদি ভিসা পাচ্ছেন। তারা ওই ভিসায় যত বার ইচ্ছা ভারত সফর করতে পারেন।

এদিকে ভারতীয় ভিসা আবেদন কেন্দ্রগুলোতে আগামী বৃহস্পতিবার থেকে অতিরিক্ত রুট অনুমোদন সেবা চালু হচ্ছে। এই সেবার জন্য প্রক্রিয়াকরণ ফি হিসেবে ৩০০ টাকা করে পরিশোধ করতে হবে। সব ভিসা আবেদন কেন্দ্র রুট অনুমোদনের আবেদন জমা দেওয়ার জন্য আলাদা কাউন্টার থাকবে। একজন আবেদনকারী বিদ্যমান ২৪টি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর এবং গেদে/হরিদাসপুর রেল ও সড়কপথ ছাড়াও অতিরিক্ত দু’টি রুটের জন্য আবেদন করতে পারবেন।

ভারতীয় হাই কমিশন (https://www.hcidhaka.gov.in/pdf/endorsementofportapplicationform.pdf) ও ভারতীয় ভিসা আবেদন কেন্দ্রের ওয়েবসাইটে (http://www.ivacbd.com/Other-Forms) আবেদন ফরম পাওয়া যাবে। এখন থেকে ঢাকায় ভারতীয় হাই কমিশন কিংবা চট্টগ্রাম, রাজশাহী, সিলেট ও খুলনার সহকারী হাইকমিশনগুলোতে অতিরিক্ত রুট অনুমোদনের কোনো আবেদন গ্রহণ করা হবে না।

আরো খবর »