মনোনয়ন না পেয়ে আ’লীগ নেত্রীর আবেগঘন স্ট্যাটাস

Feature Image

সংরক্ষিত নারী আসনে মনোনয়ন না পেয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়ে আলোচনার ঝড় তুলেছেন ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য নাজনীন আলম।

শনিবার (৯ ফেব্রুয়ারি) রাত ৭টা ১১ মিনিটের দিকে ফেসবুকে ‘আমার ফাঁসি চাই’ শিরোনামে স্ট্যাটাস দেন তিনি। ফাঁসির কারণ হিসেবে ভুল ও অপরাধের ৯ শর্তের বর্ণনাও দেন তিনি।

এ বিষয়ে নাজনীন আলম জানান, ত্যাগ ও জনপ্রিয়তা থাকা সত্যেও আমাদের বার বার বঞ্চিত করা হচ্ছে। কেন আমাদের বার বার বঞ্চিত করা হচ্ছে এটা বোধগম্য নয়।

নাজনীন আলমের ফেসবুকের মন্তব্য পাঠকদের জন্য হুবহু তুলে ধরা হল-

আমার ফাঁসী চাই..!!

কেন হাই কমান্ডের আশ্বাসকে সরল মনে বিশ্বাস করেছিলাম!, এলাকাবাসী ও দলীয় নেতাকর্মীদের পাশে থাকার প্রয়োজন কেন অনুভব করেছিলাম!, এমপি/সিনিয়র কোন নেতার পরিবারের সদস্য কেন আমি হলাম না!, কেন দলের নাম ভাঙ্গিয়ে একটি পয়সা রোজগারের ধান্ধা করিনি!, কেন দলের জন্য কাজ করতে গিয়ে দিনে দিনে নি:স্ব হতে গেলাম!, কেন জনসমর্থন অর্জনের চেষ্টা করেছিলাম!, কেন দলের ভোট ব্যাংক সমৃদ্ধ করতে সদা তৎপর ছিলাম!, কেন তদ্বীর/তেলবাজি ঠিকমত করতে পারলাম না!, কেন সমর্থকদের বার বার কাঁদাচ্ছি!!

সম্ভবত: এ সবই আমার ভুল/অপরাধ! এজন্য আমার শাস্তি হওয়া উচিত।

এ ব্যাপারে নাজনীন আলম বিডি২৪লাইভকে আরও বলেন, ‘প্রয়াত স্বাস্থ প্রতিমন্ত্রী ক্যাপ্টেন মুজিবর রহমান ফকির মারা যাওয়ার পর ২০১৬ এর উপনির্বাচনে আমি যাতে নির্বাচন না করতে পারি সেজন্য আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতারাও তৎপর ছিলেন। কেননা-যে কোন ভাবে প্রার্থী হলেই আমিই জয়ী হবে- সে কথাই বলছিল গৌরীপুরের জনমত। এর আগে ২০১৪ সালের নির্বাচনে অংশগ্রহন করেছি। তারপর ২০১৯ সালের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলাম। কিন্তু দলের জন্য এত ত্যাগ করার পরেও কেন আমাকে বঞ্চিত করা হলো তা আমার বোধগম্য নয়।’

আরো খবর »