ইউরোপে জামাতের পৃষ্ঠপোষক কাজী এনায়েত উল্লা’র হাইব্রিড আ.লীগে যোগদানের চেষ্টা

Feature Image

ফ্রান্স প্রতিনিধি :
বাংলাদেশী বংশোদ্ভুত ফরাসী নাগরিক কাজী এনায়েত উল্লা ইনু ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের ইউরোপ কমিটিতে ঢোকার জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছে। এর জন্য ইনু বড় অংকের টাকা ও বিনিয়োগ করছে বলে জানা যায়। এক সময় ইউরোপের বিভিন্ন দেশে জামায়াত বিএনপি’র পৃষ্ঠপোষক এনায়েত উল্লা’র এ ইউ টার্নের জন্য ইউরোপ আওয়ামী লীগের নব গঠিত কমিটির সভাপতি এম নজরুল ইসলাম ও সাধারন সম্পাদক ফ্রান্সে একাধিক প্রতারনা মামলার জেল খাটা আসামী মুজিবুর রহমান সক্রিয় ভুমিকা রাখছে বলে জানা যায়।


সুত্র জানায়, এনায়েত উল্লা ২০০১ সাল থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত বিএনপি জামায়াত জোট সরকারের সময় একাধিকবার বিভিন্ন সুত্রে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার জন্য শাড়ীসহ উচ্চ মুল্যের উপঢেকৈন পাঠিয়েছিলো। এর পাশাপাশি ইনু জামায়াতের সাবেক নেতা ও যুদ্ধাপরাধের জন্য ফাসী হওয়া আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদের ফ্রান্স সফরকালে তার রেস্তোরায় এক গোপন সংবর্ধনা সভার আয়োজন করেছিলো। সে সভায় ইউরোপের বিভিন্ন দেশের জামায়াতের নেতা কর্মীরা যোগ দিয়েছিলো বলে সুত্র জানায়।
সম্প্রতি ইনু তার গোপন এজেন্ডা বাস্তবায়নের জন্য সর্ব ইউরোপ আওয়ামী লীগের বর্তশান সভাপতি এম নজরুল ইসলাম (যিনি এক সময় ফিডম পার্টির সক্রিয় কর্মী ছিলেন নরসিংদী এলাকায়)এর বাংলাদেশ সফরের জন্য প্লেনের বিজনেস ক্লাসের টিকেট কেটে দেয়। এর পর পরই ইনু নজরুলের সঙ্গে বাংলাদেশে গিয়ে দেখা করে। সে সময় তারা হোটেল ইন্টার কন্টিনালে এক গোপন বৈঠকে মিলিত হয়।
পাশাপাশি এনায়েত উল্লা ইউরোপ আওয়ামী রীগের সাধারন সম্পাদক ও ফ্রান্সে একাধিক প্রতারনা মামলার দন্ডপ্রাপ্ত আসামী মুজিবুর রহমানের সঙ্গেও যোগাযোগ করে জোতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মাজারে যায়। টুঙ্গী পাড়ায় গিয়ে নিজেকে একজন মুজিব প্রেমিক হিসেবে পরিচিত করানোর চেষ্টা করে এক সময় জামায়াত বিএনপি’র পৃষ্ঠপোষক এনায়েত উল্লা ইনু।
এনায়েত উল্লা ইনু চল্লিশ বছরের বেশী ফ্রান্সে অবস্থান করলেও কোনদিন আওয়ামী লীগের জন্য কিছু করেনি। এমনকি আওয়ামী লীগের বিরোধীদের সঙ্গে ইনুর যোগসাজশের প্রমান পেয়ে ২০১৭ সালের ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রীর ফ্রান্স সফরকালীন সময়ে তাকে সম্বর্ধনা সভায় ঢুকতে দেয়নি ফ্রান্স আওয়ামী লীগের সভাপতি বেনজির আহমেদ সেলিম। আওয়ামী লীগ বিরোধীতার কারনেই তাকে সভায় ঢুকতে দেয়া হয়নি বলে বেনজির আহমেদ সেলিমের ঘনিষ্ঠরা দাবী করেন।
ইনু’র এভাবে মঞ্চ বদল নিয়ে প্যারিসে অনেকেই চিন্তিত। প্রধানমন্ত্রীর কাছে গিয়ে জামায়াত বিএনপি’র এ এজেন্ট কোন ক্ষতি করে কি না সেটা নিয়ে ও অনেকে মন্তব্য করছেন।

আরো খবর »