বড় ধরনের সামরিক মহড়া নিয়মিত না করার পরিকল্পনা যুক্তরাষ্ট্র ও দক্ষিণ কোরিয়ার

Feature Image

ওয়াশিংটন : যুক্তরাষ্ট্র ও দক্ষিণ কোরিয়া তাদের বার্ষিক বড় ধরণের সামরিক মহড়া নিয়মিত না করার পরিকল্পনা করছে। উত্তর কোরিয়ার সাথে সম্পর্কোন্নয়নে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রচেষ্টা চালিয়ে যাওয়ায় তারা এমন পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছে। শুক্রবার মার্কিন কর্মকর্তা একথা জানান। খবর এএফপি’র।


ভিয়েতনামের রাজধানী হ্যানয়ে উত্তর কোরিয়ার নেতার সাথে ট্রাম্পের দ্বিতীয় সম্মেলন শেষ হওয়ার পরপর ওই কর্মকর্তা এমন মন্তব্য করেন। তবে তিনি নাম প্রকাশ করতে অস্বীকৃতি জানান। সম্মেলনটি কোন ধরনের আনুষ্ঠানিক চুক্তি ছাড়াই শেষ হলেও উভয়পক্ষ জানিয়েছে, তারা আলোচনা চালিয়ে যাবেন।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক যুক্তরাষ্ট্রের দুই প্রতিরক্ষা কর্মকর্তার বরাত দিয়ে এনবিসি নিউজ জানায়, ফোয়াল ঈগল নামের সামরিক মহড়া বন্ধ থাকবে। গ্রীস্মে সাধারনত এ সামরিক মহড়া চালানো হয়।


ফোয়াল ঈগল হচ্ছে এ দুই মিত্র দেশের মধ্যে অনুষ্ঠিত সবচেয়ে বড় নিয়মিত যৌথ সামরিক মহড়া। এ মহড়ায় বরাবরই পিয়ংইয়ং বিক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে এর কঠোর নিন্দা জানায়। তারা এ মহড়াকে আগ্রাসন হিসেবে অভিহিত করে থাকে। অতীতে এ যৌথ সামরিক মহড়ায় দক্ষিণ কোরিয়ার দুই লাখ ও যুক্তরাষ্ট্রের প্রায় ৩০ হাজার সৈন্য অংশ নেয়।


উল্লেখ্য, গত বছর সিঙ্গাপুরে কিমের সঙ্গে টাম্পের প্রথম শীর্ষ সম্মেলনের পর থেকেই যুক্তরাষ্ট্র ও সিউল কয়েকটি যৌথ সামরিক মহড়া বাতিল করে বা ছোট পরিসরে পরিচালনা করে এবং মার্কিন যুদ্ধবিমান দক্ষিণ কোরিয়ার আকাশের উপর দিয়ে আর চক্কর দিচ্ছে না।

আরো খবর »