তোয়ালে না অন্তর্বাস! নয়া ফ্যাশনে তোলপাড় নেটদুনিয়া

Feature Image

নিউজ ডেস্ক : সাজগোজ নজরকাড়া। কিন্তু ঘামের জ্বালায় অস্থির মহিলারা। খোলামনে যে একটু ঘুরে বেড়াবেন তার জো নেই। কেননা পোশাক ও অন্তর্বাসের পুরু আস্তরণের ঠেলায় স্তন ঘেমেনেয়ে অস্থির। বিশেষত যাঁরা গুরুস্তনী তাঁদের তো অহরহ এ সমস্যা পোহাতে হয়। চট করে যে সে ঘাম মুছে নেওয়া যাবে, তারও কোনও উপায় নেই। মহিলাদের নিজস্ব এই সমস্যা মেটাতে অভিনব এক অন্তর্বাস এনেছেন লস অ্যাঞ্জেলসের এক ডিজাইনার। যা অনেকটা প্রয়োজন মেটাবে টাওয়েলের। আবার অন্তর্বাসও বটে। এই ‘টা-টা টাওয়েল’ই এখন মাতিয়ে রেখেছে নেটদুনিয়াকে।

পুরুষ ও নারীর শারীরিক গঠন অনুযায়ীয় পোশাকেরও তারতম্য আছে। পোশাকের ব্যাপারে মহিলারা নিজেদের কমফর্টকেই আজকাল প্রাধান্য দিয়েছেন। কিন্তু তা সত্ত্বেও কিছু অসুবিধা তো থেকেই গিয়েছে। বিশেষত অন্তর্বাস ও স্তন ঘেমে ওঠার ব্যাপারটা। এর হাত থেকে মুক্তি পাওয়ার উপায় নেই। এমনকী বিচে বেড়াতে গিয়েও, খোলামেলা পোশাক পরলেও এর হাত থেকে রেহাই নেই। অনেক সময়ই মনে হয়, একটা টাওয়েল থাকলে ভাল হত। তাহলে অন্তত ঘাম মুছে নিয়ে খানিকটা স্বস্তি মিলত।

এই ভাবনা থেকেই এগিয়ে আসেন ডিজাইনার এরিন রবার্টসন। তিনি বানিয়ে ফেলেছেন টাওয়েল ব্রা। যেটির নাম দিয়েছেন ‘টা-টা টাওয়েল’। এটিই এখন মজিয়ে রেখেছেন নেটদুনিয়াকে। বেশ কয়েকজন মহিলা তা পরে ছবিও পোস্ট করেছেন। অবিকল যেন টাওয়েল জড়িয়েই স্তন ঢেকেছেন মহিলারা। পোশাকের মেটিরিয়ালেও টাওয়েলের মতোই করা হযেছে। যাতে তা ঘাম শোষণ করে নিতে পারে। পাশাপাশি তা অন্তর্বাসেরও যাবতীয় চাহিদাও মেটাচ্ছে। খোলামেলা থাকতে আমেরিকান মহিলাদের এখন প্রথম পছন্দের এই টাওয়েল ব্রা। এতটাই আরামদায়ক যে, অনেকে নেটদুনিয়ায় বলছেন টি-শার্ট দেওয়ার দরকার নেই, কেউ গিফট দিতে চাইলে যেন টাওয়েল ব্রা উপহার দেন।

কমফর্ট দেওয়া ছাড়াও এই ব্রা কাজেরও বটে। ডিজাইনার জানাচ্ছেন, ব্রেস্টফিড করাতে অনেক মাকেই বেশ সমস্যায় পড়তে হয়। বহিরঙ্গের পোশাক, অন্তর্বাস থাকার দরুণ তা বেশ হ্যাপার কাজ। টাওয়েল ব্রা সে সমস্যা মিটিয়ে দিচ্ছে প্রায় এক লহমায়। সব মিলিয়ে মহিলাদের মধ্যে এই অন্তর্বাসের চাহিদা যেমন তুঙ্গে। তেমনই মজেছে নেটদুনিয়া। ফ্যাশন দুনিয়ায় এখন আলোচনার শীর্ষে এই অন্তর্বাস।

 

আরো খবর »