জয়পুরহাট জেলায় ভয়াবহ বন্যার তীব্র আশঙ্কা, নিম্নাঞ্চল প্লাবিত

Feature Image

জেলা প্রতিনিধি, স্বাধীনবাংলা২৪.কম

জয়পুরহাট থেকে মিজানুর রহমান মিন্টু: গত কয়েক দিনের টানা বর্ষণ ও উজান থেকে নেমে আসা ঢলে জয়পুরহাটের সবকটি নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। এতে ছোট যমুনা, তুলসীগঙ্গা ও হারাবতি নদীর তীরবর্তী এলাকাসহ বিস্তির্ণ এলাকার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। ফলে জয়পুরহাট সদর, পাঁচবিবি, ক্ষেতলাল ও আক্কেলপুর উপজেলার বিভিন্ন সড়কসহ কমপক্ষে ১০টি ইউনিয়নের অর্ধশতাধিক গ্রামের মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন। এসব এলাকায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বন্যার কারনে পাঠদান বন্ধ রয়েছে। পানিতে ভেসে গেছে কমপক্ষে ৫ শতাধিক পুকুর। রোপা আমনসহ বিভিন্ন ফসলের  ৪ হাজার হেক্টর জমি তলিয়ে গেছে।

তবে জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, জেলার ৪টি উপজেলার ১ হাজার ২শ’ হেক্টর জমির রোপা আমনসহ বিভিন্ন শাক-সবজির ক্ষেত তলিয়ে গেছে। অপরদিকে জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ড জানিয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় জেলায় ১১০ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। জেলার ছোট যমুনা, তুলসীগঙ্গা ও হারাবতি নদীর পানি এখন বিপদসীমার কাছাকাছি দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

এদিকে শনিবার রাতে জেলার জয়পুরহাট সদর উপজেলার বটতলী ব্রিজের অদূরে ৮ নং বম্বু ইউনিয়নের ধারকি-ঘনাপাড়া এলাকার তুলসীগঙ্গা নদীর একটি বাঁধ ভেঙ্গে গিয়েছিল, তা রোববার মেরামত করা হয়েছে। তবে ওই নদীর তীরবর্তী সতিঘাটা এলাকার অপর একটি বাঁধ মারাত্মক হুমকির মুখে। যে কোন সময় বাঁধটি ভেঙে আশেপাশের কয়েকটি গ্রাম ডুবে যাবার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

বর্তমানে সবকটি নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় জেলায় ভয়াবহ বন্যার তীব্র আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

স্বাধীনবাংলা২৪.কম/এমআর

আরো খবর »