শোক দিবসে উলিপুরকে রণক্ষেত্র করল ছাত্রলীগ

Feature Image

জেলা প্রতিনিধি, স্বাধীনবাংলা২৪.কম

কুড়িগ্রাম: জাতির জনক শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যার দিন জাতীয় শোক দিবসে সংঘর্ষে জড়াল কুড়িগ্রামের উলিপুর ছাত্রলীগ। সংগঠনটির দুই পক্ষের সংঘর্ষে ১১ জন আহত হয়েছে। সংঘর্ষ থামাতে পুলিশ কাঁদানে গ্যাস নিক্ষেপ ও লাঠিপেটা করে।

আহতদের মধ্যে পাঁচজনকে উলিপুর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এই ঘটনার পর দুই পক্ষে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। সংঘর্ষের আশঙ্কায় শহরে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

ছাত্রলীগ উলিপুর উপজেলা শাখার সাবেক যুগ্ম সাধারন সম্পাদক প্রিতম সরকার জানান, উপজেলা সম্মেলন বাতিল করে জেলা কমিটির পকেট কমিটি গঠন করা নিয়ে ছাত্রলীগের মধ্যে অসন্তোষ চলে আসছিল। মঙ্গলবার সকালে দলীয় কার্যালয়ে পতাকা উত্তোলন করা নিয়ে বাকবিতণ্ডা তৈরি হয়। পরে উপজেলা প্রশাসনের শোক শোভযাত্রায় বর্তমান কমিটির কয়েকজন সদস্য রামদা, ক্ষুর, চাপাতিসহ তাদের উপর অতর্কিত হামলা করে।

ছাত্রলীগের চলমান কমিটির সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম জানান, তারা তাদের সংগঠনের শোভাযাত্রা শেষে উপজেলা প্রশাসনের শোভাযাত্রায় যোগ দেন। মিছিলটি উলিপুর শহরের ‘ওকে টি স্টল’র সামনের সড়কে পৌঁছলে পদবঞ্চিত নেতাকর্মীরা তাদের উপর হামলা করে। এতে চাপাতি ও ক্ষুরের আঘাতে তাদের ছয় কর্মী আহত হয়। এরা হলেন: রুবেল, জাহিদ হাসান, মনজিদুল আজম রাজা, জিহাদ হোসেন, আজিজুল ইসলাম ও আব্দুর রহিম।

উলিপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এস কে আব্দুল্লাহ্ আল সাইদ জানান, পূর্ব বিরোধের জের ধরে শোক মিছিলে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষ ঘটে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে টিয়ারশেল নিক্ষেপ ও লাঠিচার্জ করা হয়। শান্তি বজায় রাখতে এক প্লাটুন অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।  বর্তমানে উপয় পক্ষের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।

স্বাধীনবাংলা২৪.কম/এমআর

আরো খবর »