সোনামসজিদ স্থলবন্দরে খালাসের অপেক্ষায় ৪০০ ভারতীয় চাউলবাহী ট্রাক

Feature Image

চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে জাকির হোসেন পিংকুঃ  চাউলের আমদানী শুল্ক কমার আশায় চাঁপাইনবাবগঞ্জের সোনামসজিদ স্থলবন্দরে প্রবেশের পরও খালাস হয়নি প্রায় ৪০০ ভারতীয় চাউলবাহী ট্রাক। গত রোববার পর্যন্ত ৮ কর্মদিবসে প্রবেশকৃত ট্রাকগুলি বন্দর পরিচালনাকারী বেসরকারী অপারেটর প্রতিষ্ঠান পানামা পোর্ট লিংক লিমিটেড ইয়ার্ডে আটকে রয়েছে।

 

ফলে বন্দরে সৃষ্টি হয়েছে ট্রাক জট। এতে বন্দরের স্বাভাবিক কার্যক্রম পরিচালনায় বিঘœ সৃষ্টি হচ্ছে। গত বৃহস্পতিবার রাত পর্যন্ত জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) হতে শুল্ক কমানোর কোন আদেশ (এসআরও-ষ্পেশাল রেভিনিউ অর্ডার) জারি হয়নি বলে মঙ্গলবার বিকেলে নিশ্চিত করেছেন বন্দর সিএন্ডএফ এজেন্ট এসোসিয়েশন সভাপতি হারুনুর রশিদ।

 

বন্দরের কাস্টমস সহকারী কমিশনার সোলাইমান আহমেদের বরাত দিয়ে তিনি জানান,এ সংক্রান্ত আদেশ জারি হলে আদেশে উল্লেখিত তারিখ অনুযায়ী নতুন শুল্কহার কার্যকর হবে। কাজেই এর পূর্বে বন্দরে প্রবেশ করা কোন গাড়ী নতুন শুল্কহারে ছাড় করা হবেনা। চাউল আমদানী শুল্কহার কমানো হচ্ছে এমন খবরে খরচ কমার আশায় গত সপ্তাহের শুরু থেকে আমদানিকারকরা চাউল খালাস বন্ধ করে দেয়। অথচ বন্দরে চাউলের গাড়ী প্রবেশ অব্যহত রয়েছে।

 

পানামা লিমিটেড সুত্র জানায়, গত শনিবার ৪৭ ও রোববার ২৮ গাড়ি চাউল প্রবেশ করে। এরপর গত সোম ও মঙ্গলবার সরকারী ছুটি ছিল। বর্তমানে চাউলের আমদানী শুল্ক ১০ শতাংশ। এর আগে, দেশে চাউলের বাজার চড়া হতে শুরু করলে সরকার চাউলের আমদানী শুল্ক ২৮ শতাংশের স্থলে ১৮ শতাংশ কমিয়ে ১০ শতাংশ নির্ধারণ করে। জানা গেছে, শুল্কহার কমানোর বিষয়টি একান্তই রাষ্ট্রীয় নীতি নির্ধারনী বিষয়।

আরো খবর »