কু্ষ্টিয়া পদ্মা-গড়াই নদীর পানি বিপদ সিমা ছুই ছুই

Feature Image

কুষ্টিয়া থেকে হুমায়ুন কবির: হু হু করে বাড়ছে পদ্মা ও গড়াই নদীর পানি। কুষ্টিয়ায় এই দুই নদীর পানি একেবারে বিপদসীমার কাছাকাছি চলে এসেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় পদ্মা নদীর পানি হার্ডিঞ্জ ব্রীজ পয়েন্টে ২৭ সেন্টিমিটার এবং পদ্মার নদীর প্রধান শাখা গড়াই নদীর পানি বেড়ে শহরের গড়াই রেলওয়ে ব্রীজ পয়েন্টে ২৫ সেন্টিমিটার বিপদসীমা ছুই ছুই।

এভাবে পানি বৃদ্ধি হতে থাকলে আগামী ৩৬ ঘন্টার মধ্যে পানি বিপদসীমা অতিক্রম করবে। গতকাল বুধবার দুপুরে কুষ্টিয়া পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে। পদ্মা ও গড়াইয়ের
পানি বৃদ্ধির ধারা আরও কয়েক দিন অব্যাহত থাকতে পারে বলে জানান পাউবোর কর্মকর্তারা। তারপরও যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবিলায় সতর্ক অবস্থানে আছে স্থানীয় প্রশাসন ও পানি উন্নয়ন
বোর্ডের কর্মকর্তারা। পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্র বলছে, পদ্মায় বিপদসীমার মাত্রা ১৪ দশমিক ২৫ সেন্টি মিটার। সেখানে মঙ্গলবার দুপুর পর্যন্ত পানি ছিল ১৩ দশমিক ২০ সেন্টি মিটার।

 

বুধবার দুপুর পর্যন্ত পানি বেড়ে হয়েছে ১৩ দশমিক ৪৭ সেন্টি মিটার। বর্তমানে বিপদসীমার মাত্র শুন্য দশমিক ৭৮ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রভাবিত হচ্ছে পদ্মার পানি। পদ্মার শাখা
নদী গড়াইয়ে পানি বিপদসীমার মাত্রা ১২ দশমিক ৭৫ মিটার। সেখানে মঙ্গলবার ছিল ১১ দশমিক ৬৩ সেন্টি মিটার। বুধবার দুপুর পর্যন্ত এই নদীর পানি বেড়ে বিপদসীমা ছিল ১১ দশমিক ৮৮ সেন্টি মিটার। বর্তমানে বিপদসীমার মাত্র শুন্য দশমিক ৮৭ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রভাবিত হচ্ছে গড়াইয়ের পানি। এদিকে গতকাল বুধবার দুপুরে শহরের মহানগর ট্যাগ এলাকায় সরেজমিনে
গিয়ে দেখা গেছে, শহর রক্ষা বাধের মাত্র তিন ফুট নিচে অবস্থান করছে গড়াইয়ের পানি। নদী সংলগ্ন বসত বাড়িতে পানি ঢুকে পড়েছে।

 

দিন-রাত আতঙ্কে রয়েছেন নদীর তীরবর্তী মানুষ। কুষ্টিয়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী জাহেদুল ইসলাম বলেন, দেশের বেশ কয়েকটি নদীর পানি বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। ব্রহ্মপুত্র-যমুনা এবং তিস্তার পানি প্রতিদিনই বৃদ্ধি পাচ্ছে। উজানের পানি আসায় পদ্মা ও গড়াইয়ের পানি বাড়ছে। আরো কয়েক দিন পানি বৃদ্ধি থাকতে পারে বলে জানান ওই কর্মকর্তা।

তিনি জানান, পদ্মার পাশে যেসব বাঁধ আছে, সেগুলোতে নজর রাখা হচ্ছে। বিশেষ করে কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার ইসলামপুর বাঁধ, কুষ্টিয়া শহরের মহানগর ট্যাগ, কুষ্টিয়া শহর রক্ষার রেনউইক বাঁধ ও কুমারখালী উপজেলার শিলাইদহ
এলাকা। শিলাইদহে পদ্মার বাঁধ নির্মাণের কাজ পানি বাড়ার কারণে বন্ধ রাখা হয়েছে। পাউবোর সব কর্মকর্তা ও কর্মচারী সতর্ক অবস্থানে আছেন।

আরো খবর »