পেঁয়াজের দাম কিছুটা কমলেও চড়া সবজির বাজার

Feature Image

স্বাধীনবাংলা২৪.কম

ঢাকা: সপ্তাহের ব্যবধানে ৩০ টাকা থেকে ৭০ টাকায় পৌঁছে যাওয়া পেঁয়াজের দাম কিছুটা কমেছে। তবে রাজধানীর বিভিন্ন বাজারে এখনও দেশি পেঁয়াজ ৫৫ থেকে ৬০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। এ ছাড়া চড়া দামে বিক্রি হচ্ছে কাঁচাসবজি। পটল, করলা, ঢেঁড়স, ঝিঙ্গাসহ সব ধরনের সবজির কেজি ৫০ টাকার উপরে।

শুক্রবার যাত্রাবাড়ী ও সায়দাবাদের বিভিন্ন বাজার ঘুরে এবং ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কথা বলে এসব তথ্য জানা গেছে।

ব্যবসায়ীরা জানান, কয়েক মাস ধরেই পটল, ঝিঙা, ধুন্দল, করলা, ঢেঁড়সসহ প্রায় সব সবজির দাম ৩০ থেকে ৪০ টাকা ছিল। কিন্তু সম্প্রতি বন্যার কারণে সবজির দাম আরও বেড়েছে।

সরজমিনে দেখা যায়, বাজার ও মান ভেদে প্রতিকেজি পটল বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ৫৫ টাকায়, যা গত সপ্তাহ ছিল ৪৫ থেকে ৫০ টাকা। ৫০ থেকে ৫৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হওয়া ঝিঙার দাম বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬০ থেকে ৬৫ টাকায়। ধুন্দল বিক্রি হচ্ছে ৪৫ থেকে ৫০ টাকায়, করলা ৬০ থেকে ৬৫ টাকায়। ঢেঁড়সের দাম বেড়ে হয়েছে ৭০ টাকা, যা গত সপ্তাহে ছিল ৬০ টাকা। এ ছাড়া গত সপ্তাহে ৬০ টাকায় বিক্রি হওয়া বেগুনের দাম আজ ৭০ টাকা।

দাম বাড়ার এ কাতারে থেমে নেই বরবটি, কাঁচাকলা ও টমেটোও। প্রতি কেজি বরবটির দাম ৬০ টাকা থেকে বেড়ে হয়েছে ৭০ টাকা। ২০ থেকে ২৫ টাকা হালি বিক্রি হওয়া কাঁচকলার দাম ৩০ থেকে ৩৫ টাকা, আর টমেটো বিক্রি হচ্ছে ১৩০ থেকে ১৩৫ টাকা কেজি দরে। গত সপ্তাহের ন্যায় চড়া দামে বিক্রি হচ্ছে কাঁচামরিচও। প্রতিকেজি কাঁচামরিচ বিক্রি হচ্ছে ১৫০ টাকা থেকে ১৬০ টাকা কেজি দরে।

গরু মাংস বিক্রি হচ্ছে ৫০০ টাকা কেজিতে। তবে গত সপ্তাহের তুলনায় কিছুটা কমেছে বয়লার মুরগির দাম। গত সপ্তাহে ১৪০ টাকা থেকে ১৪৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হওয়া সাদা বয়লার মুরগি বিক্রি হচ্ছে ১২৫ টাকা থেকে ১৩০ টাকায়।

তবে সবচেয়ে আলোচনায় থাকা পেঁয়াজের দাম কিছুটা কমেছে। প্রতি কেজি দেশি বিক্রি হচ্ছে ৫৫ টাকা থেকে ৬০ টাকায়, যা গত সপ্তাহে ছিল ৭০ টাকায়। আমদানি করা পেঁয়াজের দাম ৫৫ টাকা থেকে কমে ৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

অনেকটাই স্থির রয়েছে রসুনের দাম। প্রতিকেজি দেশি রসুন বিক্রি হচ্ছে ৮০ টাকা থেকে ১০০ টাকা কেজি দরে। আর আমদানি করা রসুন বিক্রি হচ্ছে ১২০ টাকা থেকে ১৩০ টাকায়।

স্বাধীনবাংলা২৪.কম/এমআর

আরো খবর »