অবষেশে বয়ষ্ক ভাতার বই পেলেন অন্ধ ধলবড়

Feature Image

মহম্মদপুর (মাগুরা) থেকে মাহাবুব ইসলাম উজ্জ্বলঃ অবশেষে বষষ্ক ভাতার বই পেলেন মাগুরার মহম্মদপুর উপজেলার সুলতানসী গ্রামের মৃত আজিত শেখের স্ত্রী ধলাবড়– (৭১)। গতকাল শনিবার দুপুরে অন্ধ ধলাবড়–র হাতে এ বই তুলে দেন বাবুখালী ইউনিয়নের সংশ্লিষ্ট ৫ নং ওয়ার্ড মেম্বর ডা. নাঈম হাসান বাবলু ও ৩ নং ওয়ার্ড সভাপতি সিরাজুল ইসলাম। তবে সাংবাদিকদের ধন্যবাদ জানাতে ভেলেননি এই হতভাগা এ নারী।

গত ২৭ জুন বাবুখালী প্রতিদিন নামে একটি সংবাদ ভিত্তিক ফেসবুক আইডিতে ‘অন্ধ ধলাবড়–র ভাগ্যে জোটেনি বয়ষ্ক কিংবা বিধাব ভাতার কার্ড’ শিরোনামে একটি সংবাদ প্রকাশিত হয় ফেসবুকে। পরে দৃষ্টিগোচরে আসে স্থানীয় চেয়ারম্যান ও ইউপি সদস্যদের। ইউপি চেয়ারম্যান মীর মোঃ সাজ্জাদ আলীর মহানুভবতায় এবং সংশ্লিষ্ট মেম্বরের পদক্ষেপে অন্ধ ধলাবড়–র ভাগ্যে জোটে এই বয়ষ্ক ভাতার বই। ওই সংবাদ দেখে রোগাক্রান্ত শরীর ও করুন জীবন যাপনের কথা চিন্তা করে সংশ্লিষ্ট মেম্বর ও স্থানীয় দুই চাকুরিজিবি বেক্তি তার সাহায্যের জন্য এগিয়ে এসেছিলেন। এবং সংশ্লিষ্ট মেম্বর কিছুদিনের মধ্যে তাকে বয়ষ্ক ভাতার বই করে দেওয়ার কথা জানিয়ে আশ্বস্ত করেন।

সংশ্লিষ্ট ৫ নং ওয়ার্ড মেম্বর ডা. নাঈম হাসান বাবলু বলেন, আসলে অনেক সময় অনেক কিছু আমরা নাও জানতে পারি। সাংবাদিক সমাজের মানুষরা মাঝে মধ্যে যদি আমাদের অসঙ্গতিগুলো ধরিয়ে দিলে আমাদের কাজ করতে সুভিধা হয।

উল্লেখ্য যে, বয়সের ভাড়ে নুয়ে পড়া রোগাক্রান্ত শরীর নিয়ে প্রায়ই খেয়ে না খেয়ে দিন পার করছেন অন্ধ ধলাবড়–। থাকেন পাটকাঠি আর পলিথিনের তৈরী একটি ঝুপড়ি ঘরে। দুই সন্তানসহ স্বামী অনেক বছর আগেই মারা যান। ভিটে মাটিহীন স্বামীর সাথে বিয়ে হওয়ায় এখন আশ্রীত থাকেন প্রতিবেশী দিনমজুর মোঃ বারিক শেখের বাড়িতে।

আরো খবর »