কুষ্টিয়া শহর রক্ষা বাঁধের দুই পয়েন্টে ধসেরর স্থন পরিদর্শন করলেন জেলা প্রশাসক

Feature Image

জেলা প্রতিনিধি, স্বাধীনবাংলা২৪.কম

কুষ্টিয়া থেকে হুমায়ুন কবির:গড়াই নদীর তীব্র স্রোতে কুষ্টিয়া শহর রক্ষা বাঁধে ধস দেখা দিয়েছে। রোববার দুটি পয়েন্টে বাঁধের প্রায় ৫০ মিটার বিলীন হয়ে গেছে। স্থানীয় পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তারা বলছেন, আপাতত এই ধসে আশঙ্কার কিছু না থাকলেও নদীতে আরও পানি বাড়লে  হুমকির মুখে পড়তে পারে কুষ্টিয়া শহর।

জানা গেছে, শহরের মহাশ্মশান এলাকায় গতকাল গড়াই নদীর শহর রক্ষা বাঁধের দুটি পয়েন্টে হঠাৎ করে ধস নামে। সরেজমিনে দেখা যায়, বাঁধের ব্লক ধসে নদীতে বিলীন হয়ে গেছে। কুষ্টিয়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী জাহিদ হোসেন জানান, গড়াই নদীর ব্লক বাঁধের দুটি পয়েন্টে আনুমানিক ৫০ মিটার ধসে গেছে। নদীতে পানি বৃদ্ধির পাশাপাশি স্রোত বেড়ে যাওয়ায় এ ঘটনা ঘটেছে।

তিনি বলেন, আপাতত এতে আশঙ্কার কিছু না থাকলেও নদীতে যদি আরও পানি বৃদ্ধি পায় তবে কুষ্টিয়া শহর হুমকির মুখে পড়তে পারে। এ কারণে রবিবারই তারা বাঁধ মেরামতে জরুরী পদক্ষেপ নেওয়ার সুপারিশ করে ঢাকায় রিপোর্ট পাঠিয়েছেন।

এদিকে, গত রবিবার কুষ্টিয়ায় পদ্মা নদীতে আরও ২ সেঃ মিঃ পানি বেড়েছে। জেলার ভেড়ামারা হার্ডিঞ্জ সেতু পয়েন্টে পদ্মায় পানির উচ্চতা রেকর্ড করা হয় ১৩.৭৯ মিটার। বিপদ সীমা থেকে নদীর পানি প্রায় ৪৬ সেমি নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

তবে গড়াই নদীতে পানি স্থিতি অবস্থায় আছে বলে পানি উন্নয়ন বোর্ড জানায়। এদিকে কুমারখালী উপজেলার জগন্নাথপুর এলাকায় পদ্মা তীরবর্তী প্রায় ২০০ বাড়িতে পানি ঢুকে পড়েছে। এছাড়া কুষ্টিয়া শহরে গড়াই নদীর চরের বেশকিছু বাড়িও জলমগ্ন হয়েছে।

এদিকে গড়াই নদী সংলগ্ন শহর রক্ষা বাঁধ সরেজমিনে পরিদর্শন করেছেন কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক মো. জহির রায়হান। রবিবার দুপুরে তিনি পরিদর্শনকালে জরুরী ভিত্তিতে নদী ভাঙ্গনের দরুন বাঁধটির ক্ষতিগ্রস্ত অংশ সংস্কারে সংশ্লিষ্টদের দিক নির্দেশনা প্রদান করেন।

এসময় উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ ইবাদত হোসেন, জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা মোঃ আব্দুস সবুরসহ পানি উন্নয়ন বোর্ডের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাগণ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

স্বাধীনবাংলা২৪.কম/এমআর

আরো খবর »