কালিয়াকৈরে নোটিশ ছাড়াই দোকানপাট উচ্ছেদের অভিযোগ

Feature Image

গাজীপুর থেকে আলমগীর হোসেনঃ ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের গাজীপুরের কালিয়াকৈরের সফিপুর বাজার এলাকায় নোটিশ ছাড়াই প্রায় অর্ধশতাধিক দোকান পাট উচ্ছেদ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এতে ওই সব ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালিক ও কর্মচারীসহ শতাধিক পরিবারে ঈদের আনন্দ থেকে বঞ্ছিত হচ্ছে। সোমবার সড়ক ও জনপথ বিভাগের উদ্যোগে উপজেলার সফিপুর বাজার এলাকায় অভিযান চালিয়ে ওই সব ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বোলডোজার দিয়ে গুড়িয়ে দেওয়া হয়। এতে জমির মালিক ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালিক ও কর্মচারীদের মধ্যে চরম ক্ষোভ ও হতাশা বিরাজ করছে।

ক্ষতিগ্রস্থ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালিক ও সওজ সুত্রে জানা যায়, ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের জয়দেবপুর থেকে এলেঙ্গা পর্যন্ত চারলেন উন্নতীকরনের কাজ চলছে। ওই কাজের অংশ হিসেবে সড়কের দুই পাশে কোথাও জমি অধিগ্রহন আবার কোথাও সড়ক ও জনপথ বিভাগের জমিতে থাকা ব্যবসা প্রতিষ্ঠান উচ্ছেদ করা হচ্ছে। সোমবার সড়ক ও জনপথ বিভাগ কালিয়াকৈরের সফিপুর বাজার এলাকায় সড়কের উত্তর পাশে হঠাৎ করেই ব্যবসা প্রতিষ্ঠান উচ্ছেদ অভিযান শুরু করে। এসময় সড়কের পাশে থাকা প্রায় ৫০টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গুড়িয়ে দেওয়া হয়। ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে ভেতরের মালামালও গুড়িয়ে দেওয়া হয় বলে দোকান মালিকদের অভিযোগ। নোটিশ ছাড়াই দোকানপাট উচ্ছেদ করায় দোকান মালিক ও কর্মচারীদের মধ্যে চরম ক্ষোভ ও হতাশা বিরাজ করছে। দোকানপাট ভেঙ্গে দেওয়ার ফলে এবারের ঈদে ওই সব দোকানের মালিক ও কর্মচারীসহ শতাধিক পরিবারের ঈদের আনন্দ থেকে বঞ্ছিত হচ্ছে। অপর দিকে জমির মালিকদের অভিযোগ কোন অধিগ্রহন ছাড়াই তাদের রেকডিয় জমির উপর থাকা দোকান পাট জোরপুর্বক উচ্ছেদ করা হয়েছে। যা বিধি সম্মত হয়নি।

বনলতা সুইট মিট এন্ড ষ্টেশনারীর মালিক সুকুমার বলেন, আমাদের দোকানে প্রায় ২০ থেকে ৩০ জন কর্মচারী কাজ করে। হঠাৎ করেই কোন প্রকার নোটিশ ছাড়াই দোকানপাট উচ্ছেদ শুরু করে। দোকানপাট উচ্ছেদ করায় এবারের ঈদে আমাদের দোকানের কর্মচারীদের পরিবারের ঈদের আনন্দ থেকে বঞ্ছিত হচ্ছে। দোকানপাট না চললে আমরা কিভাবে তাদের বেতন দিব।

জমির মালিক মামুদ সরকার ও আব্দুল লতিফ সরকার বলেন, তিন শতাংশ জমি অধিগ্রহন করে ২৫শতাংশ জমি দখল করে নিয়েছে। অধিগ্রহন ছাড়াই আমাদের ব্যাক্তিমালিকানা জমির উপর গড়ে তোলা বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান উচ্ছেদ করা হয়েছে। অথচ সড়কের দক্ষিন পাশে সড়ক ও জনপথ বিভাগের নিজস্ব জমি রয়েছে। ওই জমির উপর থাকা দোকান পাট রহস্যজনক কারনে উচ্ছেদ না করে আমাদের ব্যাক্তিমালিকানা জমি দখল করা হচ্ছে।

গাজীপুর সড়ক ও জনপথ বিভাগের উপবিভাগীয় প্রকৌশলী আহসান হাবিব বলেন, কোন ব্যক্তি মালিকানা জমি দখল বা জমিতে থাকা দোকানপাট উচ্ছেদ করা হয়নি। মুলত সড়ক ও জনপথ বিভাগের জমিতে থাকা দোকানপাট উচ্ছেদ করা হয়েছে। তাছাড়া ওই সব দোকানপাট উচ্ছেদের আগে নোটিশ করা হয়েছে।

আরো খবর »