সবাইকে খুব ভালোভাবে হ্যান্ডেল করতে হবে

Feature Image

স্পোর্টস ডেস্ক : অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষের সিরিজ দরজায় কড়া নাড়ছে। এই সিরিজকে সামনে রেখে বাংলাদেশ প্রস্তুত। প্রস্তুত অস্ট্রেলিয়াও। প্রতিপক্ষের দুর্বলতা ও শক্তিশালী দিন নিয়ে রণকৌশল সাজাচ্ছে উভয় দল। তবে সব পরিকল্পনার সাফল্য নির্ভর করে মাঠে সেটার প্রয়োগের উপর। বিষয়টি স্বীকার করেছেন তামিম ইকবালও। অস্ট্রেলিয়া সিরিজকে সামনে রেখে তারা সব ধরনের প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছেন। এখন সেটা মাঠে প্রয়োগ করে দেখানোর ব্যাপার। পাশাপাশি তামিম এও জানিয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে জেতা কঠিন, তবে অসম্ভব নয়।

প্রস্তুতির বিষয়ে তামিম বলেন, ‘এই সিরিজের জন্য আমরা যতদিন ধরে প্রস্তুতি নিয়েছি আমার মনে অলমোস্ট সব জায়গায় কাভার করেছি। এখন শুধু এক্সিকিউট করার পালা। আরও যে দুই দিন সময় আছে এর মধ্যে ছোট ছোট যে কাজ করার দরকার ওইগুলো নিয়েই আমরা কাজ করছি। পাশাপাশি কোন জায়গা থেকে আরও বেটার ওয়েতে কাজ করতে পাড়ি তাই নিয়েই করছি। আশা করব যে ২৭ তারিখের মধ্যে আমরা সম্পূর্ণ তৈরি হয়ে যাব। আশা করছি খুব ভালো টেস্ট সিরিজ হবে।’

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে জয়ের বিষয়ে তামিম বলেন, ‘আমার কাছে যেটা মনে হয় আমরা ঘরের মাঠে খেলছি, আমাদের একটা এডভান্টেজ থাকবে। খেলার আগেই আমরা জিততে পারব না। পাঁচটা দিন ভালো খেলে প্রত্যেকটা সেশন ফাইট করেই জিততে হবে। আর অস্ট্রেলিয়া বাংলাদেশে আসছে বলে আগের থেকে হেরে যাবে এমন কিছু না। ওরা খুব পেশাদার দল। টেস্ট ক্রিকেটে অন্যতম সেরা দল। ওদের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে হলে কিংবা জিততে হলে প্রতিটা সেশন বলেন কিংবা প্রতিটা বল বলেন ওইগুলা জিততে হবে আগে। প্রতিটা ছোট ছোট স্টেপ জিততে হবে। তারপর হারানোর চিন্তা। এটার জন্য আমরা জানি এটা সহজ হবে না। তাদের বিপক্ষে জেতা অনেক কঠিন হবে। তবে এটা অসম্ভবও না যে আমরা হারাতে পারব না। সব কিছু মাথায় রেখেই আমরা আগাচ্ছি, সবকিছু মাথায় রেখে আমরা অনুশীলন করছি দেড় মাস ধরে। সামনে মিটিংও করছি। আশা করছি ২৭ তারিখের মধ্যে আমরা পুরোপরি তৈরি হয়ে যাব। যখন টেস্ট ম্যাচ শুরু হবে তখন যতটুকু ভালো এক্সিকিউট করতে পারি ততটুকু ভালো ফলাফল হবে আমাদের জন্য।’

এই সিরিজে স্পিন বান্ধব উইকেট ও স্পিনারদের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘অবশ্যই আমাদের হোম কন্ডিশন বল স্পিন করবে। যদি স্পিনারদের সাপোর্ট থাকে উইকেটে তাহলে আমাদের স্পিনারদের ভালো বল করতে হবে, ব্যাটসম্যানদের ভালো করতে প্লাস পেস বোলারদের ভালো করা লাগবে। সব কিছু কম্বাইন্ড হতে হবে।’

উপমহাদেশের কন্ডিশনে যেহেতু স্পিন বান্ধব উইকেট হয়, সেহেতু অস্ট্রেলিয়া দলও ভালো মানের কয়েকজন স্পিনার নিয়ে এসেছে। বাংলাদেশের স্পিনাররা সুবিধা পেলে তারাও পাবে। বিষয়টিতে একমত পোষণ করে তামিম বলেন, ‘আমাদের হোম কন্ডিশনে স্পিন ভালো হয়। ওদের সঙ্গে টপ কোয়ালিটির স্পিনার আছে। নাথান লায়ন সে বেশ ভালো একজন স্পিনার। আমাদের সবকিছুর জন্য তৈরি থাকতে হবে। আমরা স্পিন উইকেট বানাব দেখে যে জিতে যাব এমন কিছু না আসলে। ঐ স্পিন উইকেটে ওদের জন্য যেমন রান করা কষ্ট হবে, আমাদের জন্যও রান করা কষ্ট হবে। যারা ভালো এক্সিকিউট করবে তাদের স্কিলস ঐ পাঁচ দিনে তাদেরই জিতার সম্ভবনা বেশি।’

নাথান লায়নের প্রশংসা করে তামিম বলেন, ‘সে একজন খুব ভালো বোলার। লেফটি বলেন রাইটি বলেন সবাইকে খুব ভালোভাবে হ্যান্ডেল করতে হবে। যদি উইকেট স্পিন করে তাহলে ও বড় থ্রেট আমাদের জন্য তবে আমরা প্রিপারেশন নিচ্ছি এর জন্য। আমরা অনেক দিন থেকেই কাজ করছি। ওরা যেমন আমাদের জন্য প্রিপেয়ারড হচ্ছিল। যেটা আমি বারে বারে বলেছি সবকিছুর জন্য আপনি প্রিপেয়ারড থাকতে পারবেন কিন্তু এক্সিকিউট করতে হবে মাঠে। আমরা যদি ওদের ভালো এক্সিকিউট করতে পাড়ি ভালো হ্যান্ডেল করতে পাড়ি অবশ্যই আমাদের সম্ভবনা থাকবে।’

আরো খবর »