নাইকোর সকল সম্পত্তি বাজেয়াপ্তের নির্দেশ

Feature Image

স্বাধীনবাংলা২৪.কম

ঢাকা: বাংলাদেশে তেল-গ্যাস উত্তোলনে কানাডীয় প্রতিষ্ঠান নাইকোর সব সম্পত্তি বাজেয়াপ্তের নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। এই প্রতিষ্ঠানটির সঙ্গে রাষ্ট্রীয় তেল-গ্যাস উত্তোলন সংস্থা বাপেক্স এবং পেট্রোবাংলার চুক্তি অবৈধ ঘোষণা করে এই নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

বিচারপতি নাঈমা হায়দার ও বিচারপতি আবু তাহের মো. সাইফুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ বৃহস্পতিবার এই আদেশ দেয়। সেই সঙ্গে সুনামগঞ্জের ট্যাংরাটিলায় গ্যাস বিস্ফোরণের ঘটনায় ক্ষতিপূরণ দেয়ার নির্দেশও দিয়েছে আদালত।

২০১৬ সালের ১০ মে বাপেক্সের সঙ্গে কানাডার প্রতিষ্ঠান নাইকোর করা যৌথ উদ্যোগ (জয়েন্ট ভেনচার) চুক্তি কেন বাতিল করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল দিয়েছিল হাইকোর্ট। একই সঙ্গে আদালত ওই চুক্তির কার্যকারিতা স্থগিত করেছিলেন। ওই রুলের শুনানি নিয়ে এ রায় ঘোষণা করল হাইকোর্ট।

আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে উপস্থিত ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোখলেসুর রহমান।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, ২০০৩ সালে বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের আমলে গ্যাস উত্তোলন ও সরবরাহের জন্য নাইকোর সঙ্গে দুটি চুক্তি করে বাপেক্স ও পেট্রোবাংলা। একটি বাপেক্সের সঙ্গে যৌথ উদ্যোগের চুক্তি, অপরটি পেট্রোবাংলার সঙ্গে গ্যাস সরবরাহ ও কেনাবেচার চুক্তি। চুক্তি দুটিকে চ্যালেঞ্জ করে জনস্বার্থে এই রিট আবেদনটি করেন কনজ্যুমারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ক্যাব) জ্বালানি উপদেষ্টা অধ্যাপক শামসুল আলম।

দেশের কয়েকটি প্রান্তিক গ্যাসক্ষেত্র থেকে গ্যাস উত্তোলন ও সরবরাহের জন্য ওই চুক্তি দুটি হয়েছিল। সেই অনুসারে ফেনী গ্যাসক্ষেত্র থেকে নাইকো গ্যাস উত্তোলন ও সরবরাহ করে এবং সুনামগঞ্জের ছাতকের টেংরাটিলায় কূপ খনন করতে গিয়ে দুবার বিস্ফোরণ ঘটায়। এরপর থেকে পেট্রোবাংলা নাইকোর কাছে ক্ষতিপূরণ দাবি করে আসছে। আর নাইকো ইকসিডে (বিনিয়োগ বিরোধ নিষ্পত্তিসংক্রান্ত আন্তর্জাতিক আদালত) গিয়ে ক্ষতিপূরণ না দেওয়ার জন্য মামলা করে।

আর ফেনী থেকে যে গ্যাস উত্তোলন করে নাইকো সরবরাহ করেছিল, তার দাম হিসেবে আড়াই মিলিয়ন মার্কিন ডলার তারা এখনো পায়নি। বাংলাদেশ পরিবেশ আইনবিদ সমিতির (বেলা) করা একটি মামলার পরিপ্রেক্ষিতে হাইকোর্ট ওই দাম পরিশোধের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়ে রেখেছেন।

স্বাধীনবাংলা২৪.কম/এমআর

আরো খবর »