সৈয়দপুরে অপহরনের শিকার মা ও শিশু ১০ দিন পর অপহরনকারীদের খপ্পর হতে পালিয়ে এসেছে

Feature Image

নীলফামারী থেকে আব্দুর রাজ্জাকঃ  অপহরণকারীদের হাত থেকে পালিয়ে এসেছে দেড় মাসের কন্যা শিশুকে নিয়ে মা আদুরী বেগম (২২)। অপহৃতা আদুরী জেলার সৈয়দপুর উপজেলা শহরের মিস্ত্রিপাড়া এলাকার একটি বাসায় দীর্ঘ ১০ দিন ধরে আটক ছিলো। সূত্র মতে, সৈয়দপুরের পাশর্^বর্তী দিনাজপুরের পার্বতীপুর উপজেলার সোনাপুকুর পশ্চিমপাড়ার আইয়ুব আলীর মেয়ে আদুরী খাতুন।

গত ১৫ আগষ্ট রাতে পিত্রালয় থেকে দেড় মাস বয়সী শিশু কন্যা সহ অপহরণ হয়। পরদিন আদুরীর বড় ভাই হামিদুল ইসলাম এ ঘটনায় পার্বতীপুর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেন। আদুরী সাংবাদিকদের জানান, তাদের গ্রামের মোতালেব হোসেন, নাজির হোসেন, একরামুল হোসেনসহ আরো কয়েকজন তাকে অপহরণ করে সৈয়দপুর শহরের মিস্ত্রিপাড়ায় অপহরণকারী আমিনুল হকের সহযোগীতায় তার বোনের বাসায় আটকে রাখে।

এ সময় অপহরণকারীরা অনেকগুলো কাগজে আমার স্বাক্ষর নেয়। স্বাক্ষর দিতে অস্বীকার করলে তারা আমার ওপর অমানবিক শারিরিক নির্যাতন চালায়। তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে অপহরণকারী মোতালেব তাকে একাধিকবার ধর্ষণ করে। আদুরীর বাবা আইয়ুব আলী জানান, অপহরণকারীদের সাথে আমার জমি সংক্রান্ত একটি দ্বদ্ব রয়েছে। তারা আমার মেয়েকে অপহরণ করে ঘটনাটি ভিন্নভাবে প্রবাহিত করার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত ছিল। তিনি জানান, আমার মেয়ে জীবনবাজি রেখে অহরণকারীদের হাত থেকে পালিয়ে এসেছে।

আমরা বিষয়টি থানায় অবহিত করে গ্রামবাসীসহ আদুরীকে থানায় নিয়ে যাই। থানা কর্তৃপক্ষ অপহৃতার জবানবন্দি শুনে তাকে পার্বতীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপে¬ক্সে ভর্তি করার পরামর্শ দিলে অসুস্থ আদুরীকে ভর্তি করা হয়। এ ব্যাপারে পার্বতীপুর থানার সেকেন্ড অফিসার এম. আর সাঈদ জানান, অপহরণের পর থেকে পুলিশ অপহৃতা মা ও শিশুকে উদ্ধারে চেষ্টা চালিয়ে ছিলো। আদুরীর বক্তব্য নোট করা হয়েছে এবং চিকিŤসার জন্য হাসপাতালে ভর্তি করার কথা বলা হয়েছে তবে পুলিশ অপহরণের বিষয়টি গুরুত্বের সাথে খতিয়ে দেখছে।

আরো খবর »