চুলের খেয়াল রাখতে কীভাবে সাহায্য করে ডুমুর?

Feature Image

ওয়েব ডেস্ক : চুল পড়া, পাকা চুল বা মাথার ত্বকের সমস্যা এখন প্রত্যেক ঘরে ঘরে। এর থেকে মুক্তি পেতে কেউ ব্যবহার করেন হেয়ার টনিক। তো কারও ভরসা আয়ুর্বেদিক তেল। কিন্তু, কাজের কাজ কিছুই হয় না। প্রাকৃতিক উপায়ে চুলের যত্ন নিতে আপনাকে সাহায্য করতে পারে ডুমুর। নানা পুষ্টিগুণে সমৃদ্ধ ডুমুর কীভাবে চুলের খেয়াল রাখে জেনে নিন-

 

ডুমুরে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন C এবং ভিটামিন E থাকে। যা চুলকে রাখে সুস্থ। চুল পড়া কমায়। ডুমুরের রস বা ডুমুর পেস্ট করে মাথায় লাগান।

 

ডুমুরে থাকে ম্যাগনেশিয়াম, যা চুলের জন্য উপকারি। রক্ত সঞ্চালন বাড়িয়ে চুলের বৃদ্ধিতে সাহায্য করে ডুমুর।

 

চুল ও মাথার ত্বকের গঠনে কলোজেন জরুরি ভূমিকা পালন করে। কলোজেন তৈরি হয় ক্যালশিয়াম থেকে। আর ডুমুর হল ক্যালশিয়ামের অন্যতম উৎস।

 

ডুমুরের রস কন্ডিশনার হিসাবে দারুণ কাজ দেয়। এর ব্যবহারে চুল ভারি বা তেলতেলে হয় না। সহজে জট পড়ে না। মাথার ত্বকও থাকে ময়েশ্চারাইজ়ড।

 

চুল পাকার সমস্যা থেকেও মুক্তি দেয় ডুমুর। এই ফলে প্রচুর পরিমাণ উৎসেচক থাকে। যা কপারের অন্যতম উৎস। কপার চুল পাকা রোধ করতে সাহায্য করে। মাথার ডুমুরের পেস্ট লাগালে চুলের রং সহজে নষ্ট হয় না।

 

কোঁকড়ানো বা ঢেউ খেলানো চুলের জন্য খুবই কার্যকরি ডুমুরের তেল। এই তেল চুলকে করে তোলে মসৃণ ও প্রাণবন্ত। সামলাতেও সমস্যা অনেক কম হয়। হেয়ার মাস্কে ১০ ফোঁটা ডুমুরের তেল মিশিয়ে তা চুলে লাগান। ১ ঘণ্টা রেখে শ্যাম্পু করে ফেলুন। কন্ডিশনারের সঙ্গে মিশিয়েও ব্যবহার করা যায়। শ্যাম্পু করার পর চুলের জল মুছে নিন। এবার কন্ডিশনারের সঙ্গে ৫-৭ ফোঁটা ডুমুরের তেল মিশিয়ে চুলে লাগান। ৭-৮ মিনিট পর পরিষ্কার জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। চুলের নির্জীব, রুক্ষ বা শুষ্কভাব দূর হবে। চুলে আসবে স্বাভাবিক জেল্লা।

আরো খবর »