নাগরপুরে ঈদের জামাতে সংঘর্ষ, ৭ জন আহত: এলাকায় টানটান উত্তেজনা

Feature Image

নাগরপুর থেকে ফিরে জালাল উদ্দিন ভিকু  :  টাঙ্গাইলের নাগরপুর উপজেলার ভাদ্রা বাজার সংলগ্ন মসজিদে ঈদের নামাজ আদায়ের সময় দফায় দফায় হামলায় ৭ জন আহত হয়েছে । যে কোন সময় আবারো সংঘর্ষের আশংকায় এলাকা টানটান উত্তেজনা বিরাজ করছে । পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে পুলিশ টহল ।

জানা গেছে-নাগরপুর উপজেলার ভাদ্রা গ্রামের ধর্ম প্রাণ মুসল্লিগন বৃষ্টি কারনে ভাদ্রা বাজার সংলগ্ন মসজিদে ঈদের নামাজ পরতে কয়েক শত মুসুল্লি জমায়েত হয় । নামাজ শুরুর আগমুহুতে মসজিদের টাকা পয়সা নিয়ে ভাদ্রা ইউনিয়নের মেম্বারের ভাই মিরন,চ লে সাথে একই গ্রামের আলতাফ,কামরুল,সম্্রাট,মো: লালনের সাথে কথা কাটাকাটির শুরু হয় ।
আহত সম্্রাট মিয়া জানান-মসজিদের ভিতরে ঈদের নামাজ শুরুর আগমুহুতে মসজিদ ফান্ডের টাকা পয়সা নিয়ে কথা কাটাকাটির ্এক পর্যায়ে এনামুল মেম্বারের ভাই মিরন,চ লও তার ভাতিজাসহ ১৫/২০ জন লাঠিসোটা নিয়ে হামলা চালায় । এছাড়া মসজিদের থাই গ্যালস ও অন্যান্য জিনিস ভাংচুর করেছে ।এনামুল মেম্বার ও তার ভাইয়েরা পরিকল্পিত ভাবে আমাদের উপর হামলা চালায় । হামলায় আলতাফ,কামরুল,সম্্রাট, মো: লালন,হেলাল, পাশান, আনোয়ার, মনির আহত হয়েছে । আহদের প্রাথমিক ভাবে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে ।

এবিষয়ে এনামুল মেম্বার জানান-আমার এলাকায় একজন প্রভাবশালী অর্থযোগান দিয়ে আধিপত্য বিস্তারের জন্য দীর্ঘদিন ধরে সমাজে বিরোধ শুরু করেছে । তার লোকজন ঈদের নামাজের সময় অন্য এলাকার লোকজন ভাড়া করে দাঙ্গা সৃস্টি করতে চেয়েছিল তা প্রতিহত করা হয়েছে ।

এবিষয়ে নাগরপুর থানা ওসি(তদন্ত) হাসান মোস্তফা জানান- ঈদের নামাজের সময় মারামারির এটা খুবই খারাপ । আমরা খবর পেয়ে তাৎক্ষনিক ভাবে আমি নিজে ফোর্স নিয়ে ঘটনা স্থলে গিয়ে উভয়কে শান্ত থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে । পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আছে পুলিশ টহল অব্যাহত রয়েছে । লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে ।

আরো খবর »