কুমারখালী ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশনের উদ্যোগে প্রবীণ ও নবীন সমন্বিত ”সেকাল ও একাল” শীর্ষক মত বিনিময় এমএন পাইলট হাইস্কুলে অনুষ্ঠিত।

Feature Image

কুমারখালীর কৃতিসন্তান বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও সমাজেসবক মো: আবদুল্লাহর সঞ্চালনা ও সভাপতিত্বে কুমারখালী ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশনের উদ্যোগে প্রবীণ ও নবীন সমন্বিত ”সেকাল ও একাল” শীর্ষক মত বিনিময় এমএন পাইলট হাইস্কুলে অনুষ্ঠিত হয়েছে সকাল সাড়ে সাতটা থেকে টানা সাড়ে দশটা পর্যন্ত।

উপস্থিত এমএন হাইস্কুলের প্রাক্তন শিক্ষাথী, শিক্ষক, কুমারখালীর বিশিষ্টজনেরা উপস্থিত থেকে সেকাল ও একালের সংযোগ সেতুতে প্রাণে প্রাণ লাগিয়ে অতীতের বর্ণালী দিনগেুলোর কথা স্মৃতিচারণ করেন । পাশাপাশি বর্তমান প্রজন্মদের তারুণ্যের প্রজ্ঞালাবণ্যর কথাও উঠে আসে। তাক লাগানো দিক নির্দেশনা দেন এবং সেকাল একালেল সমন্বয়সাধণ মুলক গুরুত্বপূণ কথা বলেন লায়ন গর্বনর কুমারখালীর কৃতিসন্তান বিশিষ্ট শিল্পতি কবি শেখ রবিউল হক। বক্তৃতা করেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সাবেক প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সাবেক সচিব কাজী আখতার হোসেন, সমাজকল্যাণ অধিদপ্তরের নির্বাহী সচিব ম: আ: কাশেম মাসুদ।

আরো বক্তৃতা করেন এমএন হাইস্কুলের প্রবীণ শিক্ষার্থী ভাষা সংগ্রামী এড মীর মোরশেদ আলী, প্রাক্তন প্রধান শিক্ষক মুহা: আব্দুল মুত্তালিব, কবি সৈয়দ আবদুস সাদিক, কুমারখালী পৌরসভার মেয়র ও বিদ্যাপিঠের প্রাক্তন ছাত্র সামছুজ্জামান অরুন, প্রাক্তন ক্রীড়াবিদ আকরাম হোসেন, সমাজকর্মকার নন্দগোপোল বিশ্বাস, প্রকৌশলী ও সাহিত্যিক রুহুল আযম, কাজী আতিয়ুর রহমান জামিল, উপ-পরিচালক স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়, পাবনা, কুমারখালী পাবলিক লাইব্রেরীর সম্পাদক মমতাজ বেগম, নাট্যকার লিটন আব্বাস, ঝিকরগাছার ইউ্এনও জাহিদুল ইসলাম পলক, এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন ডা: জোয়ার্দ্দার আব্দুর রশিদ, আব্দুর রফিক বিশ্বাস, মীর আশরাফ আলী,,সাবেক সহ:অধ্যাপক আব্দুল আওয়াল, আব্দুল গাফ্ফার বিশ্বাস, সায়মাহ হক, সমাজসেবক শরিফুল ইসলাম মাসুম, জিল্লুর রহমান মধু, সহ অধ্যাপক শাহজাহান আলী বিশ্বাস, ওমর মাশরেক টগর, লায়ন ডা: শহিদুল ইসলাম খান, সোলেমান বিশ্বাস, দীপু মালিক, আব্দুল মাজেদ। অনুষ্ঠান শেষে আকস্মিক উপস্থিত হন মাননীয় সংসদ সদস্য আব্দুর রউফ ও তার সহধর্মীনী এবং এম এন হাইস্কুল পরিচালনা পর্ষদের সভাপতিত জান্নাতুন নাহার।

এমন অনুষ্ঠানে শুধু আসা যাওয়া, খাওয়া দাওয়া আর বক্তৃতামালার মধ্য দিয়ে করনীয় বিষয় নিয়ে আলোচনার পর শুধু আলোচনা হলে যথেষ্ট কার্যকরী কিছু হবেনা বরং প্রায়োগিক ভাবনায় অন্বয় হয়ে দৃষ্টান্তমূলক পদক্ষেপও গ্রহণ করতে হবে এবং সেইসাথে কথা ও কাজকে এক জায়গায় এনে দাঁড় করাবে তখনই সম্ভব বদলে দেওয়া, বদলে যাওয়া এবং সমােজের ও রাষ্ট্রের কল্যাণ।

আরো খবর »