বাল্য বিয়ে থেকে রক্ষা পেল নাবালিকা, কাজীর কারাদণ্ড

Feature Image

জেলা প্রতিনিধি,স্বাধীনবাংলা২৪.কম

কুষ্টিয়া: কুষ্টিয়া সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইউএনও মোঃ ইবাদত হোসেনের হস্তক্ষেপে বাল্য বিয়ের হাত থেকে রক্ষা পেল অস্টম শ্রেণির এক ছাত্রী।

এ ঘটনায় কাজী আবুল হোসেনকে ১৫ দিনের কারাদণ্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

বুধবার সদর উপজেলার গোস্বামী দুর্গাপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

কুষ্টিয়া সদর উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মর্জিনা খাতুন জানান, সদর উপজেলার গোস্বামী দুর্গাপুর ইউনিয়নের উত্তর মাগুরা গ্রামের আব্বাস আলীর অষ্টম শ্রেণিতে পড়ুয়া মেয়ের সঙ্গে মিরপুর উপজেলার পোড়াদহ স্বরুপদহ এলাকার আব্দুল করিমের ছেলে জামিরুল ইসলামের সাথে বিয়ে ঠিক করেন।

বুধবার এ বিয়ের হওয়ার কথা ছিল। সে মোতাবেক সব আয়োজনও শেষ করেন কনে পক্ষ।

বিষয়টি কুষ্টিয়া সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ ইবাদত হোসেন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পেরে

উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মর্জিনা খাতুন ও পুলিশ প্রশাসন বিয়ের বাড়ি উপস্থিত হন। সেখান থেকে

নাবালিকা মেয়েকে বিয়ে না দেয়ার নির্দেশনা প্রদান করে বর কনে উভয়ের অভিভাবকদের মুচলেকা নেওয়া হয় এবং বাল্য বিয়ের জন্য উপস্থিত থাকা কাজী আবুল হোসেন কে আটক করে উপজেলা পরিষদে নিয়ে আসা হয়।

পরে সেখানে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে কাজী ১৫ দিনের কারাদণ্ড প্রদান করেন ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারিক ইউএনও মোঃ ইবাদত হোসেন।

স্বাধীনবাংলা২৪.কম/এমআর

আরো খবর »