ফতুল্লায় রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ

Feature Image

জেলা প্রতিনিধি, স্বাধীনবাংলা২৪.কম

নারায়ণগঞ্জ: জেলার ফতুল্লায় রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে  স্কুলছাত্রীকে (১৪) ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। মকবুল (২০) নামে এক বখাটে তার ৫/৬ জন বন্ধুর সহযোগিতায় মেয়েটিকে ধর্ষণ করে।

বুধবার বিকেলে ফতুল্লার ইসদাইর গাবতলী টাগারপাড় এলাকায় এ ধর্ষণের ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় রাত ১১টার দিকে ধর্ষণের শিকার স্কুলছাত্রীর বড় ভাই বাদী হয়ে ফতুল্লা মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন।

এদিকে ধর্ষণের ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে ধর্ষকের সহযোগী সাইফুল ইসলাম রাসেলকে (২৫) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতার রাসেল গাবতলী টাগারপাড় এলাকার হাজী সালাউদ্দিনের ছেলে।

ওই স্কুলছাত্রীর বড় ভাই জানান, তার ছোট বোন ইসদাইর রাবেয়া হোসেন উচ্চ বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণির ছাত্রী। বুধবার বিকেলে তাদের বাড়িতে বেড়াতে আসা খালাতো ভাইকে তার ছোট বোন এগিয়ে দিয়ে টাগারপাড়স্থ সালাউদ্দিনের বাড়ির সামনের রাস্তায় পৌঁছালে গাবতলী টাগারপাড়ের তাইজুল হক বেপারীর ছেলে মকবুলসহ তার সহযোগী রাসেল, গাফ্ফার, আসিফ, মুন্নাসহ অজ্ঞাতনামা আরও ২-৩ জন মিলে তাকে তুলে নিয়ে রাসেলের ভাড়াটিয়া বাড়ি মকবুলের বাসায় নিয়ে আটকে রাখে।

পরে সহযোগীরা বাসার বাহিরে অবস্থান নিয়ে পাহারা দেয় এবং বখাটে মকবুল পালাক্রমে একাধিকবার মেয়েটিকে ধর্ষণ করে আহত অবস্থায় ফেলে সবাই চলে যায়। এ সময় মেয়েটির চিৎকারে ওই বাড়ির ভাড়াটিয়া এক মহিলা তাকে উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ ৩০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে চিকিৎসা করিয়ে বাড়িতে খবর দেয়।

ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামাল উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ধর্ষকের এক সহযোগীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ধর্ষক ও অন্য সহযোগীদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

স্বাধীনবাংলা২৪.কম/এমআর

আরো খবর »