জাতীয় লিগে ‘প্রস্তুতি’ সারবেন মাশরাফী

Feature Image

স্বাধীনবাংলা২৪.কম

ক্রীড়া ডেস্ক: গত ১৫ জুন চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমিফাইনালে খেলেছেন। সাউথ আফ্রিকায় ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচ ১৫ অক্টোবর। বিরতিটা দীর্ঘ চার মাসের। টানা ফিটনেস অনুশীলনের মধ্যে থাকলেও শীর্ষ পর্যায়ের একজন ক্রিকেটারের জন্য ম্যাচ অনুশীলনের ঘাটতি থেকেই যায়। সেটা ভালোভাবেই অনুভব করছেন মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা। জাতীয় লিগে খেলে ঘাটতিটা কাটিতে নিতে তাই বদ্ধপরিকর টাইগারদের ওয়ানডে অধিনায়ক।

আগামী শুক্রবার থেকে মাঠে গড়াবে এবারের জাতীয় লিগ। খুলনার হয়ে খেলবেন মাশরাফী। প্রথম দুই রাউন্ডে খেলার ইচ্ছা বোর্ডে জানিয়েছেন তিনি। আরও এক রাউন্ড যোগ হওয়ার সম্ভাবনা আছে যদি প্রয়োজন মনে করেন। বোর্ড ও কোচ চণ্ডিকা হাথুরুসিংহে ম্যাশের এই ইচ্ছায় সায়ই দিয়েছেন।

বিরতির সময়টাতে ম্যাচ অনুশীলন না হলেও অবশ্য নিজেকে প্রস্তুত রাখতে কমতি রাখেননি মাশরাফী। প্রতিদিনই ঘাম ঝরিয়েছেন। ব্যাটিং, বোলিং, ফিল্ডিং অনুশীলন চলেছে সমানতালে। গত জুলাইয়ে বাংলাদেশ দলের ফিটনেস ক্যাম্পে, পরে স্কিল ক্যাম্পে, আর মুশফিকরা যখন অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টেস্টের লড়াইয়ে তখনও মাশরাফী অনুশীলনের মধ্যেই ছিলেন।

এমনকি টেস্ট সিরিজের পর অন্যরা যখন ছুটি কাটাচ্ছেন, মাশরাফী তখনও সহকারী কোচ রিচার্ড হ্যালসল ও বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশের অধীনে অনুশীলন চালিয়ে যাচ্ছেন মিরপুরে। সেই অনুশীলনের ফুলগুলো মালা করে গাঁথতেই এখন প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচ খেলার সিদ্ধান্ত ম্যাশের।

অবশ্য বড় দৈর্ঘ্যের ম্যাচের সঙ্গে মাশরাফীর সখ্য নেই দীর্ঘদিন হল। টেস্টে শেষবার খেলেছেন ২০০৯ সালে। ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে সেই সেন্ট ভিনসেন্ট টেস্টের কথা মনে পড়লে আক্ষেপটাই বড় হয়ে ওঠে। অধিনায়ক হিসেবে প্রথমবার খেলতে নেমে ম্যাচের তৃতীয় দিনের শুরুতেই চোট নিয়ে খুড়িয়ে খুড়িয়ে মাঠ ছেড়েছিলেন। সাদা পোশাকে আর নামা হয়নি। সময়টাতে মাশরাফী প্রথম শ্রেণির লড়াইয়ে জাতীয় লিগে ২০১০ ও ২০১২ সালে একটি করে ম্যাচে খেলেছেন। ২০১৪ সালে খেলেছেন দুটি। প্রায়ে সাড়ে তিন বছর পর আবারও ফিরছেন ম্যাচ অনুশীলনের তাড়নায়।

স্বাধীনবাংলা২৪.কম/এমআর

Loading...

আরো খবর »