তরুণীর পেটে ৭৫০ গ্রাম চুল

Feature Image

দিল্লির বাসিন্দা এক তরুণীর পেটে যা পাওয়া গেল, তাতে এমন চাঞ্চল্যকর ঘটনাই সামনে এসেছে।
চুল পড়ার সমস্যার কথা তো শুনেছেন। কিন্তু চুল খাওয়ার সমস্যার কথা কখনও শুনেছেন কি?

একটি সর্বভারতীয় হিন্দি সংবাদমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, নিজের চুল নিজেই খেতেন ওই তরুণী। অস্ত্রোপচারের পরে সেই চুল পেট থেকে বার করেন চিকিৎসকরা।

দিল্লির বাসিন্দা এক তরুণীর পেটে যা পাওয়া গেল, তাতে এমন চাঞ্চল্যকর ঘটনাই সামনে এসেছে। কুড়ি বছর বয়সি ওই তরুণীর বেশ কিছুদিন ধরেই ওজন কমছিল। কিন্তু তাঁর পেট ক্রমাগত ফুলে যাচ্ছিল। শেষ পর্যন্ত ওজন কমতে কমতে তিরিশ কেজি হয়ে যাওয়ার পরে তাঁর চিকিৎসা শুরু হয়। সেই সময়ে তরুণীর গায়ের রংও হলুদ হয়ে গিয়েছিল। শেষ পর্যন্ত মুম্বইয়ের রাজাবাড়ি হাসপাতালে অস্ত্রোপচারের পর তাঁর পেটের ভিতরে সাড়ে সাতশো গ্রাম চুলের গোছা পান চিকিৎসকরা।

চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, আসলে ওই তরুণী রাপুঞ্জল সিন্ড্রোম নামে একটি বিরল রোগে আক্রান্ত। সেই কারণেই গত কয়েক বছর ধরে নিজের চুল খাচ্ছিলেন ওই তরুণী। শুধু তাই নয়, ওই চুল খেতেন বলেই ওই তরুণী অন্য কিছু খেতেও পারতেন না। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, নির্দিষ্টভাবে যে রোগটিতে ওই তরুণী আক্রান্ত হয়েছেন, তার নাম ট্রিকোফেজিয়া।
ভরত কামাথ নামে যে চিকিৎসক ওই তরুণীর অস্ত্রোপচার করেছেন, তিনি জানিয়েছেন, তরুণীর পাকস্থলী জড়িয়ে ছিল চুলের গোছাটি। সাড়ে সাতশো গ্রাম ওজনের চুলের গোছাটি প্রায় ১০৩ সেন্টিমিটার লম্বা ছিল। ফলে, তা ক্ষুদ্রান্ত্র পর্যন্ত ছড়িয়ে গিয়েছিল। এখনও পর্যন্ত গোটা বিশ্বে রাপুঞ্জল সিন্ড্রোমের ৮৮টি ঘটনা জানা গিয়েছে।

তরুণীর পাকস্থলী, ক্ষুদ্রান্ত্রের কোনও ক্ষতি না করে চুলের গোছা পেটের ভিতর থেকে বের করে আনাই চিকিৎসকদের কাছে সবথেকে বড় চ্যালেঞ্জ ছিল। শুধু তাই নয়, তরুণীকে অস্ত্রোপচারের ধকল নেওয়ার মতো অবস্থায় আনতেও তিন বোতল রক্ত দিতে হয়। কারণ, তাঁর রক্তে হিমোগ্লোবিনের সংখ্যা অনেকটাই কমে গিয়েছিল। শেষ পর্যন্তভাবে সফলভাবেই অস্ত্রোপচার শেষ করেন চিকিৎসকরা।

মুম্বইয়ের ওই হাসপাতালের চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, স্বাস্থ্য বিষয়ক আন্তর্জাতিক জার্নালগুলিতে প্রকাশের জন্য ভারতের এই তরুণীর চিকিৎসার তথ্য পাঠানো হবে।

আরো খবর »