গোপালগঞ্জে চলছে দুর্গাপূজা মন্ডপের প্রস্তুতি

Feature Image

জেলা প্রতিনিধি, স্বাধীনবাংলা২৪.কম

গোপালগঞ্জ থেকে এস এম সাব্বির: ঈদুল আযহার উৎসবের রেশ এখনো কাটেনি। এরই মাঝে উকি দিচ্ছে সনাতন ধর্মাম্বলীদের সর্ববৃহৎ ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা। কদিন বাদেই মহালয়ার মধ্য দিয়ে দেবী দুর্গার আগমন ঘটবে মর্তলোকে। এ উৎসবকে কেন্দ্র করে গোপালগঞ্জের ১১৫৩টি মন্ডপে চলছে পূজার প্রস্তুতি।

এ বছর গোপালগঞ্জ জেলায় সবচেয়ে বেশি পূজামন্ডপ সদর উপজেলায়। এখানে ৩১৪টি মন্ডপে পূজার আয়োজন চলছে। এছাড়া কোটালীপাড়া উপজেলায় ২৭৩টি, মুকসুদপুর ২৪৭টি, কাশিয়ানী ২৩৮টি ও টুঙ্গিপাড়া উপজেলায় ৮১টি মন্ডপে পূজা অনুষ্ঠিত হবে।

২৬ সেপ্টেম্বর মহাষষ্ঠী দেবীর বোধনের মধ্য দিয়ে দুর্গোৎসব শুরু হবে। এদিনে ঢাকের বাজনা, উলুধ্বনি ও আরতীতে মুখরিত হবে শহর, পাড়া-মহল্লা ও গ্রাম। ৩০ সেপ্টেম্বর মধুমতি নদীতে প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হবে এই উৎসব। এবছর মা দুর্গা নৌকায় চড়ে পৃথিবীতে আসবেন। আবার কৈলাশে ফিরে যাবেন ঘোটকে (ঘোড়া) চড়ে।

এখন গোপালগঞ্জের মৃৎ শিল্পীরা ব্যস্ত সময় পার করছেন প্রতিমা নিপুণ আঁচড়ে গড়তে। প্রতিমাতে পড়ছে ভাস্করের রং তুলির আঁচড়।

মৃৎশিল্পী বাবুল ভট্টাচায ও রবন্দ্রনাথ পাল জানান, এবছর এক-একজন ভাস্কর ৩ থেকে ৬ টি করে প্রতিমা তৈরি করেছেন। পূজা শুরুর দিন পর্যন্ত রং এর কাজ করতে হবে।

গোপালগঞ্জের জেলা পূজা উদর্যাপন পরিষদের সভাপতি ডাঃ অসিত কুমার মল্লিক জানান, প্রতিবারের ন্যায় এবারো হাজারো ভক্তের উপস্থিতিতে প্রতিমা বিসর্জন উৎসব হবে। তাই নিরাপত্তার ব্যাপারে পুলিশসহ আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সহযোগিতা চাওয়া হয়েছে।

এ ব্যপারে গোপালগঞ্জের পুলিশ সুপার মোঃ সাইদুর রহমান বলেন, প্রতি বছরের ন্যায় এবারও অন্য সব বিভাগের সমন্বয়ে একটি শক্তিশালী নিরাপত্তা বলয় তৈরির চেষ্টা অব্যাহত থাকবে।

স্বাধীনবাংলা২৪.কম/এমআর

আরো খবর »