সংসারে একমাত্র উপার্জণক্ষম ব্যক্তি সালমা খাতুন কিডনী রোগে আক্রান্ত

Feature Image

সংসারে একমাত্র উপার্জণক্ষম ব্যক্তি সালমা খাতুন কিডনী রোগে আক্রান্ত সে বাঁচতে চায়এবং তার সংসারকে বাঁচাতে চায়। এ চাওয়া মানবিক!

সালমা খাতুন (৩১) স্নাতক পাস করে ২০১০ সালে কুমারখালী কলেজ থেকে। তারপর এনজিওতে চাকুরী করে সংসারে পিতা-মাতা নিয়ে কোনরকমে চলছিল। তার পিতা মো: আবুল ফজল সেখ একজন দরিদ্র কৃষক। সে পরের বাড়ি কাজ করে সংসার চালাচ্ছিল কিন্তু বিগত ৭ বৎসর ধরে প্যারালাইসিস রোগে আক্রান্ত হয়ে বিছানাগত হওয়ার পর থেকে সালাম খাতুনই সংষারের হাল ধরেছিল। কিন্তু সেই সালমা খাতুন ২০১২ সালে কিডনী রোগে আক্রান্ত হয়। প্রথমে একটি্ইকডনি পরে দুটি কিডনিই অকেজো হওয়ার পথে। মাদ্রাজের ভেলরে চিকিৎসা করিয়েও বর্তমানে আর অর্থকড়ি ও সহায় সম্পদ না থাকায় চিকিৎসা করাতে পারছেনা।

 

এলাকার মানুষের কিছু সহযোগিতায় এতদিন চলছিল তার চিকিৎসা। নিজে দূরারোগ্য ব্যাধিতে আক্রান্ত হওয়ায় ঠিকমত চাকুরীও করতে পারছেনা। দিনদিন শরীর দূর্বল হয়ে যাচ্ছে। সালাম খাতুনের বাড়ি কুমারখালীর খয়েরচারায়। সংসারে সেই একমাত্র উপার্জণক্ষম ব্যক্তি যদি নিজেই মৃত্যুর দিকে ধাবিত হয় তাহলে তাদের সংসারের নিশ্চয়তা কোথায়? মহান সৃষ্টিকর্তার কাছে সালমা খাতুনের রোগব্যাধি থেকে সুস্থ হওয়ার দোয়া কামনা করে সমাজের বিত্তবানদের কাছে সালমা খাতুনের চিকিৎসার জন্য আর্থিক সাহায্যের আবেদন করছি যাতে বিত্তবানদের সালমা খাতুনের চিকিৎসার জন্য সাহায্য করবার তৌফিক দান করেন।

 

সালমা আমাদেরই পড়শি। একজন কর্মনিস্ঠাবান মানুষ। সেও আর দশজনের মতো সৎভাবে জীবন জীবিকা নির্বাহ করতে চায়। মানুষ মানুষের জন্য। একজন মানুষ আর একজন মানুষকে সহযোগিতা করবে এই হলো মানবতার মূলমন্ত্র। মানবিকতার দায়ে এবং সমাজের কল্যাণে সহৃদয়বানরা নিশ্চয় এগিয়ে আসবেন আশা করি। একজন মানুষের জীবন বাঁচাতে দশজন মানুষ এগিয়ে আসবেন যুগে যুগে এই উদাহরণ দৃষ্টান্ত হয়ে আছে।
সালমা খাতুনের বিকাশ নম্বর : ০১৭২৮-৬০১১০৬

আরো খবর »