রঙ্গনা থেকে সফল টুট্টিফ্রুটি

Feature Image

২০১৮ সালে শখ করে পেস্ট্রি আইটেমের কাজ শেখে নাঈমা নাসরিন। বাসায় যখন কেক, পেস্ট্রি, ডেজার্ট আইটেম রান্না করতো সবাই প্রশংসা করতো। তারপর ঐ বছর নেইমার বিয়ে হয়ে যায়। স্বামী ও পরিবারের খুবই প্রশংসা ও সাপোর্ট পেয়ে চিন্তা করে একটি পেস্ট্রি সপ ওপেন করার। ২০১৯ সালের জুলাই মাসে Tutti-frutti নামে একটি ফেসবুক পেজ ওপেন করে।

২০১৯ সালের আগস্ট মাসে রঙ্গনা গ্রুপের এডমিন আঁখি আক্তার জুলি পেজে মেসেজ করে রঙ্গনা গ্রুপের উদ্বোধন পার্টিতে কেক স্পন্সর করার জন্য। নাঈমা নাসরিন বিজনেসে প্রথম স্পন্সর করলেন, এবং ৬ আগস্ট ২০১৯ তারিখ রঙ্গনার পার্টিতে উপস্থিত সবাই নাঈমা নাসরিন এর তৈরি কেক মুখে দিতেই বললো আপু অসাধারণ কেক বানান। ৭ আগস্ট ২০১৯ থেকে রঙ্গনা গ্রুপে নাঈমা নাসরিন সেল পোস্ট দিতে শুরু করলো, গ্রুপের এডমিন, মডেরেটর, মেম্বার সবাই রিভিউ দিতে থাকলো।

১ লাখ ২১ হাজার মেম্বার এর গ্রুপে নাঈমা নাসরিন কে সবাই চিনতে থাকলো। গত ৩ মাসে রঙ্গনা গ্রুপ থেকে প্রায় ২০০ কেক বিক্রি করেছে নাঈমা নাসরিন। এবং পরবর্তীতে আরও অনেক গ্রুপেই স্পন্সর করে এবং সেই গ্রুপ থেকেও অনেক সেল করে চলছেন। অনলাইন থেকে কেনাকাটা নিয়ে সবাই চিন্তিত থাকে, যেমন বলে তেমন পাবে কিনা, পরিমাণ ঠিক থাকবে কিনা, দাম বেশি নিবে কিনা। এই সকল প্রশ্ন মাথায় রেখে tutti-frutti একদম অল্প দামে অধীক স্বাদে, ক্রেতার পছন্দের কেক বিক্রি করছে। কেক এর সাথে আরও নানান dessert আইটেম বানান,পিৎজা, বার্গার ও পাওয়া যায় তার পেজে থেকে।মিনি কেক থেকে শুরু করে যে যত চায় সে অনুপাতেই কেক পাবেন নাঈমা নাসরিন এর পেস্ট্রি সপে।
এভাবেই রঙ্গনা থেকে সফল টুট্টিফ্রুটি

বার্তা টিভি কে নাঈমা নাসরিন আরও জানান, যেভাবে তিনি অনলাইনে সবার ভালোবাসা ও ব্যবসায় সাড়া পেয়েছেন তাতে খুব শিঘ্রই উনি Tutti-frutti কে বড় করে ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান হিসেবে সকলের সামনে উদ্বোধন করতে চান।

আরো খবর »