করোনাভাইরাস আঘাতে ভালো নেই বাংলাদেশের পার্লার মালিকরা

Feature Image

বাংলাদেশ হাজার হাজার বিউটি পার্লার রয়েছে। বেশিরভাগ ছোট এবং মাঝারি বিউটি পার্লার। বড় পার্লার আছে হাতেগোনা মাত্র কয়েকটি। করোনাভাইরাসের জন্য ছোট এবং মাঝারি বিউটিপার্লার গুলির এখন খুবই শোচনীয় অবস্থা। মার্চের 20 তারিখ থেকে এখন অবধি সব পার্লার গুলি বন্ধ।

বেশিরভাগ পার্লার মালিক গন তাদের এই বিজনেস এর উপাজিত অর্থে সংসার চালিয়ে থাকেন। এপ্রিলের 12 তারিখে হচ্ছে খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বীদের বড় উৎসব ইস্টার সানডে আর 14 তারিখ পহেলা বৈশাখ। এই দুটি বড় অনুষ্ঠানকে ঘিরে পার্লারের বেশ কিছু ইনকাম হয় কিন্তু এবার করোনাভাইরাসে জন্য সবকিছু বন্ধ হয়ে আছে। কিছুদিন পরে রমজানের ঈদ। সামনে কি হবে আমরা নিজেরাও বলতে পারছি না। বিউটি পার্লারের সাথে জড়িত আছে অনেক দরিদ্র ও অসহায় বিধবা নারী যাদের একমাত্র অবলম্বন এই বিউটি পার্লার। এই একটা মাত্র সম্বল অবলম্বন করে তারা জীবিকা নির্বাহ করিতেছে। বাংলাদেশের হাজারও নারী আছে যারা এই বিউটি পার্লার নিয়েই বেঁচে আছে। বর্তমানে এক মহামারী ভাইরাস আমাদের এই সারা পৃথিবীতে হানা দিয়েছে।

আমরাও সারা বাংলাদেশের মানুষ আতঙ্কিত এবং হতাশা গ্ৰস্থ। আমাদের এই বিউটি পার্লার অনেকদিন থেকে বন্ধ। এমত অবস্থায় ছোট এবং মাঝারি পার্লার মালিকদের জন্য খুবই খারাপ সময় চলছে। এতদিনের এই ক্ষতি কিভাবে তারা পুষিয়ে নেবে এই চিন্তায় এখন সবাই হিমশিম খাচ্ছে। মাস শেষ হলেই বাড়ি ভাড়ার চিন্তা, স্টাফদের বেতন দিতে হবে, ইলেকট্রিসিটি বিল, ভ্যাট, পানির বিল তো আছেই। অনেকেই এই সমস্যার জন্য হতাশাগ্রস্ত হয়ে যাচ্ছে। রাতের ঘুম নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। তাই সকল বিউটি পার্লার মালিকদের পক্ষ থেকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা, আমাদের মা জননী, আমরা আপনার কাছে আকুল আবেদন জানাচ্ছি যে, আমাদের এই নারী সমাজের উন্নয়নে এবং বিউটি পার্লার ইন্ডাস্ট্রিকে বাঁচানোর জন্য আপনার সহযোগিতা কামনা করছি।

আকলিমা আক্তার শান্তা , বিউটি এক্সপার্ট বাই মুন মেকওভার

আরো খবর »