আমাকে ধর্ষণের হুমকি দেওয়া হচ্ছে: সুশান্তের বান্ধবী রিয়া

Feature Image

সোশ্যাল মিডিয়ায় ধর্ষণের হুমকি দেওয়া হলো সুশান্ত সিং রাজপুতের বান্ধবী রিয়া চক্রবর্তীকে। সুশান্ত সিংহ রাজপুতের মৃত্যুর এক মাস পেরিয়ে গেল, তবুও তার বান্ধবী, অভিনেত্রী রিয়া চক্রবর্তীর প্রতি সুশান্ত ভক্তদের রোষ বাড়ছে বই কমছে না। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার।

খবরে বলা হয়, পরিস্থিতি এমন হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায় সরাসরি রিয়ার ওপর চাপ সৃষ্টি করে বলা হচ্ছে তাকে রেপ বা মার্ডার করে দেওয়া হবে যদি না তিনি আত্মহত্যা করেন! স্তম্ভিত রিয়া ইনস্টাগ্রামে লিখেছেন, ‘আমাকে দেহব্যবসায়ী বলা হলো। আমি চুপ ছিলাম। আমাকে হত্যাকারী বলা হলো। আমি চুপ ছিলাম। কিন্তু আমার চুপ থাকার মানে এই নয় যে আমি কাউকে আমাকে ধর্ষণ বা খুন করার অধিকার দিয়েছি, মান্নু রাউত আমি আত্মহত্যা না করলে আমাকে খুন বা রেপ করা হবে এই কথা বলার অধিকার কে দিলো আপনাকে? আপনি জানেন আপনি কি বলছেন? এটা ভয়ঙ্কর অপরাধ! কারও সঙ্গেই এরকম হোক চাই না আমি!’

রিয়া তার পরবর্তী ইনস্টাগ্রামের পোস্টে রিয়া সুশান্তের একটি ছবি দিয়ে অমিত শাহের অফিসিয়াল পেজে পোস্ট করেছেন। এই পোস্টে নিজের পরিচয় দিতে গিয়ে রিয়া লিখেছেন, ‘স্যার আমি সুশান্ত সিংহ রাজপুতের বান্ধবী রিয়া চক্রবর্তী। এক মাসের ওপর হয়ে গেল সুশান্ত চলে গেছে। আমি সরকারের প্রতি আস্থাশীল। চাই এই তদন্তের সিবিআই তদন্ত হোক। আমি শুধু জানতে চাই সুশান্তের ওপর কী এমন চাপ সৃষ্টি করা হয়েছিল যে ওকে আত্মহত্যা করতে হল!’

রিয়ার এই পোস্টেও নেটিজেনদের কেউ চুপ থাকেননি। কেউ বলেছেন ‘নাটক করছে’, কেউ বলেছে, ‘নিজেকে বাঁচাচ্ছে’ তো কেউ লিখেছেন ‘করণ জোহরকে জেলে পাঠাও’।

সুশান্তের মৃত্যুর এক মাসের মাথায় রিয়া ইনস্টাগ্রামে সুশান্তের প্রতি নিজের ভালবাসার কথা প্রথম বলেন। তিনি লেখেন, ‘চাঁদ, তারা, আর ওই সুবিশাল মহাকাশ… তোমাকে দু’হাত বাড়িয়ে স্বাগত জানিয়েছে নিশ্চয়। এখন নিশ্চয় অনেক শান্তিতে আছ তুমি… আজ মনে পড়ে জান, খসে পড়া তারা, যার নিজের কোনো আলো নেই… তাকেও কীভাবে শুধুমাত্র নিজের আনন্দ দিয়ে আলোকিত করার ক্ষমতা রাখতে তুমি। আজ তুমি সেই খসে পড়া তারা। আমার তারা। যে তারার জন্য আমি অপেক্ষা করতেও রাজি… আজীবন…।’

কিন্তু রিয়ার এই পোস্টে ফল হলো বিপরীত। রিয়ার এই পোস্টে ৮০,০০০ মানুষ কমেন্ট করেন। এই কমেন্টের বেশিরভাগের মধ্যেই সুশান্ত ভক্তরা রিয়ার প্রতি ক্ষোভ উগরে দেন। কেউ লিখেছেন, ‘সুশান্ত শুধু অঙ্কিতার, কৃতি শ্যানন বা রিয়া কেউ সুশান্তের ভালোবাসা ছিলেন না। রিয়া তুমি কেনো এ সব লিখে সময় নষ্ট করছো?’ কেউ সরাসরি প্রশ্ন করেছেন রিয়াকে, ‘এতোই যদি ভালোবাসা তাহলে সুশান্তের খারাপ সময়ে ওকে ছেড়ে চলে যেতে পেরেছিলে কেমন করে? সুশান্তকে কেনো ৫১টা সিম বদলাতে হয়েছিল?

কেউ আবার লিখেছেন, ‘রিয়া, তোমার মতো মেয়ের জন্য সুশান্তকে আজ মরতে হলো। তুমি ওই মহেশের সঙ্গেই থাকো। তোমার কেরিয়ারে আর কিছু হবে না।’ অবস্থা এতটাই শোচনীয় হয় যে এর পরেই আসতে থাকে খুন আর ধর্ষণের হুমকি। রিয়া সাইবার ক্রাইম ইন্ডিয়াকে তার পোস্ট ট্যাগ করে সাহায্য চেয়েছেন। রিয়ার এই পোস্টে লাইক করেছেন আলিয়া ভাট।

আরো খবর »