বাল্যবিয়ে দেয়ার অভিযোগে কনের মাসহ চারজনের জেল

Feature Image

যশোরের বাঘারপাড়ায় বাল্যবিয়ে দেওয়ার অভিযোগে কনের মাসহ চারজনকে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। সোমবার সন্ধ্যায় উপজেলার আগড়া গ্রামে অভিযান চালিয়ে এ সাজা দেওয়া হয়। ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তানিয়া আফরোজ।

ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্রে জানা গেছে, সোমবার বিকেলে খবর আসে মাগুরা জেলার শালিখা উপজেলার নুর ইসলামের ছেলে রাজুর সঙ্গে বাঘারপাড়া উপজেলার ধলগ্রাম ইউনিয়নের আগড়া গ্রামের এক শিক্ষার্থীর বাল্যবিয়ের আয়োজন চলছে। এমন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তানিয়া আফরোজ সেখানে উপস্থিত হয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন। তবে ভ্রাম্যমাণ আদালত ঘটনাস্থলে পৌঁছানোর আগেই স্থানীয়দের সহায়তায় সেখান থেকে বর-বউকে সরিয়ে ফেলে হয়।

এ সময় বাল্যবিয়েতে সহায়তার অভিযোগে মেয়ের মাকে ১৫ দিন, মেয়ের ফুফু ও চাচিকে পাঁচ দিন করে এবং হুমায়ূন কবির নামে প্রতিবেশী এক যুবককে সাত দিনের জেল দেওয়া হয়।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তানিয়া আফরোজ বলেন, ‘ঘটনাস্থলে পৌঁছানোর আগেই বিয়ে সম্পন্ন করে তাদের সরিয়ে দেওয়া হয়। তবে বাল্যবিয়ে দেওয়ার অভিযোগে কনের মাসহ চারজনকে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দেওয়া হয়েছে। রাস্তার নির্মাণ কাজ চলায় ঘটনাস্থলে পৌঁছাতে দেরী হয়।

এই সুযোগে স্থানীয়দের সহায়তায় ছেলে-মেয়েকে দূরে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। অবস্থা দেখে মনে হয়েছে সেখানে শতাধিক লোকের আয়োজন চলছিল’। দায়িত্বশীলরা সচেতন না হলে এ কর্মকাণ্ড রোধ করা সম্ভব নয় বলেও উল্লেখ করেন উপজেলার এই শীর্ষ কর্মকর্তা।

আরো খবর »