ডিভাইস কিনতে বিনা সুদে ঋণ পাচ্ছেন খুবি শিক্ষার্থীরা

Feature Image

করোনা মহামারি পরিস্থিতিতে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে (খুবি) অনলাইনে একাডমিক কার্যক্রম চালু রাখতে কর্তৃপক্ষের নানামুখী উদ্যোগের সঙ্গে সঙ্গে শিক্ষার্থীদের সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করতে বেশ কয়েকটি বিষয় যুক্ত হচ্ছে। অনলাইনে যাতে সকল শিক্ষার্থী ক্লাসে যুক্ত হতে পারেন সেজন্য যেসব শিক্ষার্থীর প্রয়োজনীয় ডিভাইস এবং ইন্টারনেট প্যাকেজ (এনড্রয়ড মোবাইল সেটসহ) কেনার যথেষ্ট সামর্থ্য নেই তাদেরকে বিনাসুদে শিক্ষাঋণ দেওয়া হবে।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্র জানায় ২৯টি ডিসিপ্লিনের (বিভাগ) প্রত্যেকটির ১৪জন করে মোট ৪০৬জন শিক্ষার্থীরা পাঁচ হাজার টাকা করে পাবেন। এটা সম্পূর্ণ বিনা সুদে তাদের শিক্ষা মেয়াদে শিক্ষাঋণ দেওয়া হবে। শিক্ষা মেয়াদের মধ্যে তারা তা পরিশোধ করার সুযোগ পাবেন।

শুক্রবার বিকেল ৪টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক প্রধানদের সাথে এক ভিডিও কনফারেন্স শেষে এ সিদ্ধান্ত গ্রহণের পর রাত সাড়ে ৯টার দিকে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি (খুবিসাস) ও বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত শিক্ষার্থী সাংবাদিকদের সাথে এক ভিডিও কনফারেন্সে এ পদক্ষেপের কথা জানান উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জ্বামান।
শিক্ষার্থীদের এ সুবিধা দেওয়ার পাশাপাশি স্ব স্ব ডিসিপ্লিন থেকে শিক্ষকবৃন্দ এবং এলোমনাইদের সহযোগিতায় অস্বছল শিক্ষার্থীদের বিভিন্নভাব সহযোগিতা অব্যাহত রয়েছে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

শিক্ষার্থীদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বর্তমান করানা মহামারি পরিস্থিতিতে শিক্ষার্থীরা যাতে ঘরে বসেই চিকিৎসা সুবিধা পেতে পারে সেজন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেল সেন্টার থেকে ২৪ ঘণ্টা টেলিমেডিসিন সুবিধা কার্যকর হবে বলেও তিনি জানান।

কোভিড-১৯ পরীক্ষাসহ বিশ্ববিদ্যালয় সংশ্লিষ্ট বহুমুখী গবেষণা সুবিধার লক্ষ্যে খুবির একটি স্বতন্ত্র অত্যাধুনিক আরটি-পিসিআর ল্যাব স্থাপনের প্রস্তাবও অনুমোদন দেওয়া হয়েছে বলে তিনি জানান।

উল্লখ্য, করানা মহামারি পরিস্থিতির মধ্যে গত তিন মাস একাডমিক প্রধানদের সাথ কয়ক দফা ভিডিও কনফারেন্সে মিলিত হন উপাচার্য। এসব সভায় অনলাইন শিক্ষাকার্যক্রম সচল রাখতে বিভিন্ন উদ্যোগ নেওয়া হয়।

শিক্ষার্থীদের নিরবিছিন্ন ও কম মূল্যে ইন্টারনেট সুবিধা প্রদানে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন ও শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগ অব্যাহত রয়েছে এবং বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষও নানাভাব সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করে চলেছে বলেও উপাচার্য জানান।

আরো খবর »