প্রয়োজনে কাঁচা চামড়া রপ্তানি করা হবে : বাণিজ্যমন্ত্রী

Feature Image

আসন্ন ঈদুল আজহা উপলক্ষে কোরবানির পশুর চমড়ার দাম ২৩ থেকে ২৯ শতাংশ কমিয়ে নির্ধারণ করা হয়েছে। ঢাকায় লবণযুক্ত গরুর চামড়ার দাম প্রতি বর্গফুট ৩৫ থেকে ৪০ টাকা এবং ঢাকার বাইরে ২৮-৩২ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। এ ছাড়া সারা দেশে খাসির চামড়া ১৩-১৫ টাকা আর বকরির চামড়ার দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ১০ থেকে ১২ টাকা।

আজ রবিবার ভার্চুয়াল সংবাদ মাধ্যমে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশির সঙ্গে চামড়া ব্যবসায়ীদের বৈঠকে এ দাম ঘোষণা করেন। ভার্চুয়াল এ বৈঠকে বাণিজ্য সচিব ড. মো. জাফর উদ্দীনের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন চামড়া খাত শিল্পের উদ্যোক্তা, ব্যবসায়ী, রপ্তানিকার ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রতিনিধিরা।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, গত বছরের সংকটকে বিবেচনায় নিয়ে চামড়া শিল্পের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সবার সঙ্গে আলোচনা করে এবারের চামড়ার দর নির্ধারণ করা হয়েছে। এ ছাড়া এবার সকল পর্যায়ে নজরদারির জন্য বিশেষ মনিটরিং সেল গঠন করা হয়েছে। কাঁচামাল সংগ্রহে সরবরাহ পর্যায়ে যেন নায্য দাম পান বিষয়টি নজরে আনা হয়েছে। এ ছাড়া প্রয়োজনে কাঁচা চামাড়া রপ্তানির সুযোগ দেওয়া যেতে পারে জানান তিনি।

টিপু মুনশি বলেন, ঢাকায় লবণযুক্ত গরুর চামড়ার দাম প্রতি বর্গফুট ৩৫ থেকে ৪০ টাকা। গত বছর যা ছিল ৪৫-৫০ টাকা। ঢাকার বাইরে ২৮-৩২ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে গত বছর যা ছিলো ৩৫-৪০ টাকা। গরুর চামড়ার ক্ষেত্রে গতবছরের চেয়ে দাম কমানো হয়েছে ২৯ শতাংশ। এ ছাড়া সারা দেশে খাসির চামড়া ১৩-১৫ টাকা, গত বছর যা ছিল ১৮-২০ টাকা। এক্ষেত্রে গত বছরের চেয়ে দাম কমানো হয়েছে ২৭ শতাংশ। পাশাপাশি বকরির চামড়ার দাম নির্ধরণ করা হয়েছে ১০ থেকে ১২ টাকা, গত বছর যা ছিল ১৩-১৫ টাকা। এক্ষেত্রেও দাম কমানো হয়েছে ২৩ শতাংশ।

এদিকে গরিব ও এতিমদের হক চামড়ার দাম নিয়ে গত বছরের কারসাজি অতীতের সব রেকর্ড ছাড়িয়ে যায়। খাত সংশ্লিষ্টরা বলেন, ‘ইতিহাসের সবচেয়ে খারাপ বছর ছিল গতবার। কোরবানির ঈদে কাঁচা চামড়ার দরে সবচেয়ে বেশি বিপর্যয় নেমে আসে। দাম না পেয়ে অনেকেই ক্ষোভে চামড়া রাস্তায়, ড্রেনে এবং মাটিতে পুঁতে ফেলেন।

চামড়ার দাম নিয়ে মতপার্থক্য থাকলেও বাণিজ্য সচিব জাফর উদ্দীন বলেন, সবাইকে সাথে নিয়ে যৌক্তিক মূল্যায়ন নির্ধারণের চেষ্টা করা হয়েছে। এতে সকলের স্বার্থ বিবেচনায় নেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া কোনো রকম সংকট তৈরি না হয় এজন্য এবার প্রচার প্রচারণায় গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। যা অন্য যেকোনো সময়ের চেয়ে বেশী। গণমাধ্যমে ৩ মিনিটের টিভিসি এবং গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

পশুর কাঁচা চামড়া নির্ধারিত মূল্যে ক্রয়-বিক্রয়, সংগ্রহ, সংরক্ষণ, মজুত এবং চামড়ায় প্রয়োজনীয় লবণ লাগানো তদারকিতে একটি কমপ্রেহেন্সিভ মনিটরিং প্ল্যান গ্রহণ করেছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। এ প্লান বাস্তবায়নে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় কেন্দ্রীয় যৌথ সমন্বয় কমিটি, কেন্দ্রীয় সমন্বয় ও মনিটরিং কমিটি, কন্ট্রোল রুম, ঢাকা ও নাটোর জেলার জন্য বিশেষ মনিটরিং টিম, বিভাগীয় ও জেলার জন্য বাণিজ্য মন্ত্রণালয়াধীন দপ্তর/সংস্থার সমন্বয়ে মনিটরিং টিম এবং সব জেলা পর্যায়ে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে এ টিম কাজ করবে।

আরো খবর »