জাপায় হঠাৎ পরিবর্তন

Feature Image

জাতীয় পার্টির মহাসচিব পদে হঠাৎ করেই আবার পরিবর্তন এসেছে। মসিউর রহমান রাঙ্গাকে বাদ দিয়ে নতুন মহাসচিব করা হয়েছে জিয়া উদ্দীন আহমেদ বাবলুকে। গতকাল রবিবার কোনো ধরনের পূর্বাভাস ছাড়াই এমন পরিবর্তনের ঘটনা ঘটে। নতুন মহাসচিবের নাম ঘোষণা করেন দলের চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ (জি এম) কাদের।

নতুন মহাসচিব জিয়া উদ্দীন আহমেদ বাবলু জাতীয় পার্টির বর্তমান কো-চেয়ারম্যান। তিনি জি এম কাদেরের ভাগ্নিজামাই। এর আগে হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ তাঁকে একবার দলের মহাসচিব পদে নিয়োগ দিয়েছিলেন। পরে আবার সরিয়েও দিয়েছিলেন।

দলের চেয়ারম্যান মহাসচিব পদে এমন পরিবর্তন আনতে পারেন মন্তব্য করে বিষয়টি মেনে নিয়েছেন সদ্য সাবেক মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা।

মহাসচিব বদলের ঘটনাটি হঠাৎ করেই ঘটেছে জানিয়ে জাতীয় পার্টির অতিরিক্ত মহাসচিব রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘জাতীয় পার্টিতে এমন ঘটনা আগেও ঘটেছে। পার্টির গঠনতন্ত্রে চেয়ারম্যানকে পরিবর্তনের ক্ষমতা দেওয়া হয়েছে।’ এতে দলের কোনো ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে কি না—এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘জিয়া উদ্দীন আহমেদ বাবলু সদ্যই মহাসচিব হলেন। এখনই এ নিয়ে কথা বলার সময় নয়।’

গতকাল দুপুরে গণমাধ্যমে দেওয়া জাতীয় পার্টির যুগ্ম দপ্তর সম্পাদক মাহমুদ আলম স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘গোলাম মোহাম্মদ কাদের এক সাংগঠনিক আদেশে জিয়া উদ্দীন আহমেদ বাবলুকে পার্টির মহাসচিব হিসেবে নিয়োগ দিয়েছেন। জিয়া উদ্দীন আহমেদ বাবলু মহাসচিব হিসেবে মসিউর রহমান রাঙ্গার স্থলাভিষিক্ত হবেন। জাতীয় পার্টির গঠনতন্ত্রের ২০/১ (১) ক উপধারার প্রদত্ত ক্ষমতাবলে এই আদেশ কার্যকর হবে।’

২০১৮ সালের ৩ ডিসেম্বর জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা এরশাদ দলের মহাসচিব পদ থেকে রুহুল আমিন হাওলাদারকে সরিয়ে দিয়ে মসিউর রহমান রাঙ্গাকে নিয়োগ দেন। এরশাদের মৃত্যুর পর গত বছরের ২৮ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত দলের প্রথম কেন্দ্রীয় সম্মেলনে মসিউর রহমান রাঙ্গা ফের মহাসচিব হন। মেয়াদ পূর্ণ হওয়ার আগেই তাঁকে পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হলো।

নতুন নিয়োগ পাওয়া মহাসচিব জিয়া উদ্দীন আহমেদ বাবলু কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আমার লক্ষ্য সংগঠনের সবাইকে নিয়ে কাজ করে পার্টিকে এগিয়ে নেওয়া, শক্তিশালী করা। আমি সে কাজ করতে চাই।’

সদ্য সাবেক মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘এ বিষয়ে আমি আগে কিছুই জানতাম না। এখন পর্যন্ত পরিবর্তনের কোনো চিঠিও পাইনি। কেন এমন হলো তা বুঝতে পারছি না। যদিও জাতীয় পার্টিতে মহাসচিব বদলের এমন অনেক নজির রয়েছে।’

রংপুরে বাবলুর কুশপুত্তলিকা দাহ
আমাদের রংপুর অফিস জানায়, মসিউর রহমান রাঙ্গাকে বাদ দিয়ে জিয়া উদ্দীন আহমেদ বাবলুকে জাতীয় পার্টির মহাসচিব করার সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানিয়েছেন রংপুরের নেতাকর্মীরা। গতকাল সন্ধ্যায় নগরীর সেন্ট্রাল রোডে দলীয় কার্যালয়ে বিক্ষোভ সমাবেশ করেন তাঁরা। তাঁরা বাবলুর কুশপুত্তলিকা দাহ করে দলীয় চেয়ারম্যানের এই সিদ্ধান্ত বাতিলের দাবি জানান। সমাবেশে বক্তব্য দেন জেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক, সাংগঠনিক সম্পাদক শামীম সিদ্দিকী, জেলা যুব সংহতির সভাপতি হাসানুজ্জামান নাজিম, মহানগর যুব সংহতির সাধারণ সম্পাদক আলাল উদ্দিন কাদেরী শান্তি, মহানগর জাতীয় শ্রমিক পার্টির সভাপতি রাজু আহম্মেদ রাজু প্রমুখ।

আরো খবর »