জনস্বাস্থ্য উন্নয়নে তামাক ও তামাকজাত দ্রব্যের ওপর কর বাড়ানোর আহ্বান

Feature Image

জনস্বাস্থ্য উন্নয়নে তামাক ও তামাকজাত দ্রব্যের ওপর কর বাড়ানোর আহ্বান জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। তিন দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ কর্মশালায় তারা তামাক কর বৃদ্ধির মাধ্যমে তামাকজাত দ্রব্যের দাম বাড়িয়ে সরকারের রাজস্ব বৃদ্ধিতে একসাথে কাজ করারও আহ্বান জানিয়েছেন।

আজ মঙ্গলবার এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। গত রবিবার শুরু হওয়া এই কর্মশালা মঙ্গলবার শেষ হয়েছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনৈতিক গবেষণা ব্যুরো (বিইআর) ও বাংলাদেশ নেটওয়ার্ক ফর টোব্যাকো ট্যাক্স পলিসি (বিএনটিটিপি) যৌথভাবে মিটিং সফটওয়ার জুমে ‘ইকোনোমিক্স অব ট্যোবাকো ট্যাক্সেশন : পাবলিক হেলথ পাসপেকটিভ’ শীর্ষক কর্মশালার আয়োজন করে। বিইআরের তামাক কর প্রকল্পের প্রকল্প ব্যবস্থাপক হামিদুল হিল্লোলের সঞ্চলনায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক অধ্যাপক ড. রুমানা হকের সমাপনী বক্তব্যের মধ্য দিয়ে কর্মশালা শেষ হয়েছে।

কর্মশালার প্রথম দিনে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সাবেক চেয়ারম্যান ব্র্যাক ইন্সটিটিউট অব গভার্নেন্স অ্যান্ড ডিভলপমেন্টের অধ্যাপক ড. নাসির উদ্দিন আহমেদ ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক এসএম আব্দুল্লাহ, দ্বিতীয় দিনে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ন্যাশনাল প্রফেশনার অফিসার ডা. সৈয়দ মাহবুবুল আলম ও সিনিয়র সাংবাদিক সুশান্ত সিনহা এবং শেষ দিনে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সাবেক সদস্য আমিনুর রহমান ও বিইআরের ফোকাল পার্সন অধ্যাপক ড. রুমানা হক প্রশিক্ষক হিসেবে অংশ নেন।

কর্মশালায় জনস্বাস্থ্য সুরক্ষায় তামাকের ভোক্তা কমিয়ে আনার লক্ষ্য নিয়ে তামাক কর, কর প্রশাসন, তামাক কম্পানির কূটচালসহ নানা বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়। আলোচনায় জনস্বাস্থ্যের সুরক্ষায় ও রাজস্ব বৃদ্ধিতে একটি সময়োপযোগী জাতীয় তামাক কর নীতি প্রণয়নের দাবি জানানো হয়।

আরো খবর »