‘বঙ্গবন্ধু সকল বিতর্কের ঊর্ধ্বে’

Feature Image

নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে এফডিসিতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদাতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালন করা হচ্ছে। সকালেই চলচ্চিত্রের ১৯টি সংগঠনের ব্যানারে ঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। এরপর ধানমণ্ডিতে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান ১৯ সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

সকাল ১১টা থেকে এফডিসির জহির রায়হান কালার ল্যাবের সামনে শুরু হয় ১৯ সংগঠনের পক্ষ থেকে আলোচনা সভা। এ সময় মঞ্চে হাজির হন চিত্রনায়ক শাকিব খান, খল অভিনেতা মিশা সওদাগর, নায়ক রিয়াজ, ওমর সানী, অনন্ত জলিল, সাইমন সাদিক, নায়িকা নূতন, রোজিনা, মৌসুমী, নিপুন ও অপু বিশ্বাস। প্রযোজক সমিতির সভাপতি খোরশেদ আলম খসরু, সেক্রেটারি শামসুল আলম ও ১৯ সংগঠনের নেতারাও উপস্থিত ছিলেন। পরিচালক সমিতির সভাপতি মুশফিকুর রহমান গুলজার অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করেন।

অনুষ্ঠানে বক্তারা বঙ্গবন্ধুকে সকল দলমত ও সংগঠনের উর্ধ্বে রাখার দাবি করেন। তারা বলেন, বঙ্গবন্ধু এমন একজন নেতা যিনি সকল বিতর্কের ঊর্ধ্বে। কারণ তিনি বাংলাদেশের জাতির পিতা।আমাদের জাতিস্বত্ত্বার পরিচয় তিনি।

দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে এ আলোচনা সভায় হাজির হন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ । মন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধুর মতো নেতাকে খুন করে তারা দেশের কত বড় ক্ষতি করেছে তা কখনও পূরণ হবার নয়। তবে বাংলাদেশ নিয়ে বঙ্গবন্ধুর যে স্বপ্ন ছিলো আমরা সবাই চাইলে সে স্বপ্ন কিছুটা হলেও তো বাস্তবায়ন করতে পারবো। বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা সে ব্রত নিয়েই সামনে এগোচ্ছেন। এই এফডিসিও বঙ্গবন্ধুর তৈরি। তাই আসুন, শোক দিবসে প্রতিজ্ঞা করি বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলাকে আমরা যার যার অবস্থান থেকে সুন্দর করার চেষ্টা করি।

মন্ত্রী উপস্থিতি হওয়ার আগে চিত্রনায়ক রিয়াজ তার বক্তব্যে বলেন, বঙ্গবন্ধু আমাদের সবার নেতা। তার মতো নেতা ছিলো বলেই আমরা আজ বাংলাদেশ পেয়েছি। বঙ্গবন্ধু দলমত নির্বিশেষে সবার।

চিত্রনায়িকা নিপুণ বলেন, শোক দিবসে বঙ্গবন্ধুর খুনি যারা এখনও বেঁচে আছেন তাদের শাস্তি দাবি করছি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইতোমধ্যে এ বিচার কাজ শুরু করে আমাদের এ কলঙ্কমুক্ত করছেন। আশা করি যারা এখনও বিচারের বাইরে আছেন তাদের যথাযথ বিচার হোক।

আরো খবর »