বার্সার অধঃপতনের দায় বোর্ডের: জরিপ

Feature Image

শিরোপা শূন্য থেকে চলতি মৌসুম শেষ করেছে বার্সেলোনা। শিরোপার টিকে থাকা আশাটা কাতালানদের শেষ হয়েছে বায়ার্নের বিপক্ষে চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ আটে ৮-২ গোলের হারে। শুধু বায়ার্ন লজ্জা নয়, বার্সেলোনার সামগ্রিক এই অধঃপতনের দায় বার্সেলোনার বোর্ড প্রেসিডেন্ট মারিও বার্তামেউ, বোর্ড পরিচালক এরিক আবিদালদের। স্প্যানিশ সংবাদ মাধ্যম মার্কার এক জরিপে এমনই তথ্য উঠে এসেছে।

বার্সেলোনা ভক্তরা দ্রুতই নির্বাচনের মাধ্যমে ক্লাবের নতুন প্রেসিডেন্ট আনার পক্ষে মত দিয়েছেন। মার্কার চালানো ওই জরিপে ৬২ শতাংশ উত্তরদাতা জানিয়েছেন, সম্প্রতি বার্সেলোনার এমন খারাপ পারফরম্যান্সের দায় বোর্ডের। উত্তরদাতাদের ৮২ শতাংশ নির্বাচনের মাধ্যমে বার্তামেউকে প্রেসিডেন্টের পদ থেকে সরিয়ে দেওয়ার পক্ষে ভোট দিয়েছেন। বাকিরা অবশ্য আগামী মৌসুমে তাদের মেয়াদ শেষ হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করার কথা বলেছেন।

বার্সার খারাপ অবস্থার পেছনে মাত্র ছয় শতাংশ উত্তরদাতা কোচ কিকে সেতিয়েনের ওপর দায় চাপিয়েছে। বাকি ৩২ শতাংশ ভক্ত মনে করছেন, বোর্ড কিংবা কোচ নয় বার্সার এই অধঃপতনের দায় খেলোয়াড়দের। তবে দলের নিম্মমুখী যাত্রায় সেতিয়েনের দায় না দেখলেও ৭২ শতাংশ ভক্তই আগামী মৌসুমে সেতিয়েনকে বার্সার ডাগ আউটে দেখতে চান না। তারা চান, সাবেক ক্লাব লিজেন্ড জাভি হার্নান্দেজ কাতালানদের কোচ হয়ে ক্লাবে ফিরে আসুক।

জাভির পক্ষে ৩৬ শতাংশ ভোট পড়েছে। জাভির পরে এগিয়ে আছেন মাউরিসিও পচেত্তিনো। টটেনহ্যামের সাবেক আর্জেন্টাইন কোচকে মেসিদের দায়িত্ব নেওয়ার পক্ষে মত দিয়েছেন ১৫ শতাংশ ভক্ত। এছাড়া ১২ শতাংশ করে ভোট পেয়েছেন নেদারল্যান্ডসের কোচ রোনাল্ড কোম্যান এবং বেলজিয়ামের স্প্যানিশ কোচ রর্বাতো মার্টিনেজ। মার্কার জরিপে বার্সার দলে আমূল পরিবর্তন চাওয়া হয়েছে। মাত্র ছয়জন ক্রিকেটার বার্সা শিবিরে থাকার যোগ্য বলে মত দিয়েছেন ভক্তরা।

তারা হলেন লিওনেল মেসি, ডিফেন্ডার ক্লিমেন্ট লিংলেট, তরুণ ফরোয়ার্ড আংসু ফাতি, গোলরক্ষক মার্ক টের স্টেগান, তরুণ মিডফিল্ডার রিকি পুচ এবং ডিফেন্ডার রোনাল্ড আরাজু। ভক্তদের ৬৮ শতাংশ মনে করেন আগামী মৌসুমে ফ্রান্সের বিশ্বকাপ জয়ী ফুটবলার অ্যান্তোনিও গ্রিজম্যানের বার্সার থাকা উচিত হবে না। তবে ৬৭ ভাগ ভক্ত চান মেসি বার্সাতেই থাকুক। অন্তত আগামী মৌসুমের জন্য হলেও। বায়ার্ন মিউনিখের বিপক্ষে বার্সেলোনার লজ্জার হারলে ৪২ শতাংশ ভক্ত ২০১৯-২০ মৌসুমের সবচেয়ে খারাপ মুহূর্ত বলে বেছে নিয়েছেন।

আরো খবর »