দেশেই আগে আবাসিক ক্যাম্প ক্রিকেটারদের

Feature Image

তিন টেস্টের সিরিজ খেলতে শ্রীলংকা যাওয়ার দেশে এক সপ্তাহের আবাসিক ক্যাম্প করবেন ক্রিকেটাররা। ক্যাম্পের জন্য বড় একটা দল দেওয়ার কথা ভাবছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) নির্বাচকরা। সেখান থেকেই বেছে নেওয়া হবে শ্রীলংকা সফরের চূড়ান্ত দল। আগামী ২১ সেপ্টেম্বর ওই ক্যাম্প শুরুর কথা ভাবছে বিসিবি।

সেক্ষেত্রে ক্রিকেটারদের শ্রীলংকা যাওয়ার সূচিতে আসতে পারে পরিবর্তন। এর আগে জানানো হয়েছিল ২৩ বা ২৪ সেপ্টেম্বর শ্রীলংকার উদ্দেশ্যে দেশ ছাড়বেন ক্রিকেটার। এক সপ্তাহের ক্যাম্প হলে সফরটা গিয়ে দাঁড়াতে পারে মাসের শেষ প্রান্তে। আবাসিক ক্যাম্প শুরুর আগে বিসিবি ক্রিকেটারদের বাসায় গিয়ে করোনার নমুনা পরীক্ষার ব্যবস্থাও করবে।

বিসিবির ক্রিকেট অপারেশন্সের চেয়ারম্যান সোমবার সাংবাদিকদের জানান, ১৮ সেপ্টেম্বর করোনা পরীক্ষার জন্য সকল ক্রিকেটারের বাসায় যাওয়া হবে। এরপর ২০ সেপ্টেম্বর হোটেলে প্রবেশ করে পরদিন থেকে ক্যাম্প শুরু করবেন ক্রিকেটাররা। শ্রীলংকা যাওয়ার আগেই তিনবার তাদের করোনা পরীক্ষা করানো হবে। প্রথম পরীক্ষার পর ২১ সেপ্টেম্বর হবে দ্বিতীয় পরীক্ষা। এরপর শ্রীলংকা যাওয়ার আগে হবে আরও একটি পরীক্ষা।

শ্রীলংকা সফরের জন্য ২০-২২ জনের দল নেওয়ার কথা চিন্তা করছে বোর্ড। আকরাম খানের মতে, দলে একাধিক বিকল্প রাখতে হবে। কারণ শ্রীলংকা নিয়মিত ক্রিকেটারদের করোনা পরীক্ষা করাবে। কেউ আক্রান্ত হলেই তাকে থাকতে হবে কোয়ারেন্টাইনে। আকরাম খান জানান, শ্রীলংকায় তিন-চারটি প্রস্তুতি ম্যাচও খেলার কথা ভেবে রেখেছেন তারা। তার জন্যও লম্বা বহরের দরকার।

শ্রীলংকা গিয়ে ক্রিকেটারদের ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে বলে এর আগে বিসিবিকে জানানো হয়। বাংলাদেশ তাই আগে ভাগে লংকা সফরে যেতে চেয়েছিল। কিন্তু শ্রীলংকায় গিয়ে প্রথম তিন সপ্তাহের খরচ বহন করতে হবে বিসিবির। তাতে মোটা অর্থ খরচা হবে বোর্ডের। শ্রীলংকা আবার বলছে, ক্রিকেটাররা তিন-চারদিন কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করলেই হবে। লংকান বোর্ডের থেকে বিষয়টি পুরোপুরি নিশ্চিত হয়েই তাই সফরের চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানান আকরাম খান। আগামী ২৪ অক্টোবর সিরিজের প্রথম টেস্ট খেলবে দুই দল।

আরো খবর »