সুশান্তকাণ্ডে প্রেমিকা রিয়াকে জেরা করছে সিবিআই

Feature Image

সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুরহস্য উদঘাটন সিবিআই-এর মুখোমুখি রিয়া চক্রবর্তী।

শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে তিনি তদন্তকারীদের মুখোমুখি হন। সঙ্গে ছিলেন তার আইনজীবী।

মনে করা হচ্ছে, সুশান্ত এবং তার সম্পর্ক নিয়ে বিশদে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে রিয়াকে। কোথায় প্রথম আলাপ থেকে সুশান্তের পরিবারের সঙ্গে রিয়ার সম্পর্ক-সব দিক নিয়েই জানতে চাইবেন গোয়েন্দারা। জেরার বড় অংশ জুড়ে থাকবে তাদের বিলাসবহুল ইউরোপ সফরও।

পাশাপাশি, রিয়ার কাছে গোয়েন্দারা জানতে চাইতে পারেন সুশান্ত সিং রাজপুতের স্বাস্থ্য সংক্রান্ত বেশ কিছু প্রশ্নও। রিয়া কি সুশান্তের হাতে ওষুধ দিতেন? যদি হ্যাঁ, তা হলে কার পরামর্শের ভিত্তিতে দিতেন? শোনা যাচ্ছে রিয়ার বাবা নাকি সুশান্তকে ওষুধ দিতেন। জানতে চাওয়া হবে সে প্রসঙ্গেও। এছাড়া হিন্দুজা হাসাপাতালে কেন সুশান্তকে ভর্তি করা হয়েছিল, অথবা গত ৮ জুন সুশান্তের বাড়ি ছেড়ে চলে যাওয়ার আগে রিয়া কি সুশান্তের পরিবারের লোকদের জানিয়েছিলেন সুশান্তের অবসাদগ্রস্ত অবস্থার কথা? সিবিআই গোয়েন্দাদের সামনে রিয়াকে এই প্রশ্নগুলিরও মুখোমুখি হতে হবে বলে মনে করা হচ্ছে।

গত ১৪ জুন মুম্বাইয়ে নিজের বাড়িতে উদ্ধার হয় অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের ঝুলন্ত দেহ। তারপর থেকে প্রায় প্রতিদিনই এই ঘটনার চাঞ্চল্যকর দিক সামনে আসছে। প্রথমে ঘটনার তদন্ত করছিল মুম্বাই পুলিশ। কিন্তু পরে সুশান্তের বাবা কেকে সিং অভিযোগ দায়ের করেন পটনার রাজীবনগর থানায়। তার অভিযোগ, সুশান্তের অর্থ নয়ছয় করেছেন রিয়া এবং চক্রবর্তী পরিবারের বাকি সদস্যরা। কেকে সিংয়ের অভিযোগের ভিত্তিতে বিহার পুলিশও এই তদন্তে শামিল হয়।

গত ১৯ আগস্ট এই মৃত্যুরহস্যের তদন্তভার সিবিআই-এর হাতে তুলে দেয় সুপ্রিম কোর্ট। পরের দিন থেকেই সিবিআই-এর বিশেষ তদন্তকারী দল বা সিট কাজ শুরু করে। ঘটনার সঙ্গে জড়িত অনেককেই ইতিমধ্যে‌ জেরা করেছেন গোয়েন্দারা। সিবিআই ছাড়াও তদন্ত করছে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট বা ইডি এবং নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো।

সুশান্তকাণ্ডে বার বার উঠে এসেছে গত বছর তাদের বিলাসবহুল ইউরোপ সফরের কথা। এক বেসরকারি চ্যানেলে সাক্ষাৎকারে রিয়া দাবি করেন, সেই সময়ে একটি মডেলিংয়ের কাজ নিয়ে তার প্যারিসে যাওয়ার কথা ছিল। বিজ্ঞাপন সংস্থাটিই তার আন্তর্জাতিক সফরের ব্যয় বহন করছিল।

রিয়ার কথায়, ‘সুশান্ত আমাকে বলে, চলো আমরা নিজেদের মতো করে বেড়াই। ও-ই বিজনেস ক্লাসে আমাদের টিকিট কাটে এবং প্যারিস, ভেনিসসহ বিভিন্ন শহরে দামি দামি হোটেল বুক করে। আমি সুশান্তকে এত খরচ করতে বারণ করেছিলাম। কিন্তু ও শোনেনি। এটাই ওর জীবনযাপনের ধরন ছিল।’ এই সফরেই সুশান্তের মানসিক অবসাদ খুব বেড়ে গিয়েছিল বলে আগে মুম্বাই পুলিশকে জানিয়েছিলেন রিয়া।

রিয়ার বিরুদ্ধে সুশান্তকে মাদক দেওয়ার অভিযোগও উঠেছে। আজ আর একটি চ্যানেলকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে রিয়া দাবি করেন, ‘সুশান্ত বহু দিন ধরেই মারিজুয়ানা খেত। ওকে সামলানোর অনেক চেষ্টা করেছিলাম।’

সংবাদমাধ্যমে রিয়ার আরও দাবি, সুশান্ত নাকি স্বপ্নে দেখা দিয়ে তাকে সত্যিকথা প্রকাশের জন্য বলেছেন। সেইসঙ্গে অভিনেত্রী এও জানান, সুশান্তের মৃত্যুতে তিনি মানসিকভাবে বিধ্বস্ত।

আরো খবর »